পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/৩৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


টীকা শুামলবৰ্ণ, ঘন, চিঙ্কণ ও পরিষ্কার জক্‌বিশিষ্ট শিশুদেহেই সৰ্ব্বোৎকৃষ্ট বীজ হইয়া থাকে। সঙ্গে সঙ্গে বীজ লইয়া টীকা দে গুয়াই প্রশস্ত । টীকা দেওয়া শিশু না পাওয়া গেলে অগত্য ब्रक्रिड दौण दांना नै कt निtड ह्ग्न । बणां वांछ्ला डांण बैौछ ন। মিলিলে টকা দেওয়া বন্ধ রাখা উচিত । একট পরিপক্ক টীকার উপর অল্প কাটিয়া দিলে সঙ্গে সঙ্গে ৫৬ জনকে টীকা দিবার উপযুক্ত রস নির্গত হয় এবং ভবিষ্যতে ৫৬ জনকে টীকা দিবার নিমিত্ত গজদন্তনিৰ্ম্মিত শলাক-মুখ সিক্ত করিয়া লওয়া যাইত্তে পারে। কিরূপে টকা দেওয়া হয়, তাহাই এখন সংক্ষেপে বর্ণিত হইতেছে। বাহুর উপরিভাগই টাকা দিবার প্রশস্ত স্থান । এই স্থানের চৰ্ম্ম টান করিয়া ধরিয়া একটা পরিষ্কার शूडौक्रू বীজস্রক্ষিত ছুরিকার মুখ দ্বারা ঈষৎ বক্রভাবে অল্প চিরিয়া দিবে। ইছর পর চৰ্ম্ম ছাড়িয়া দিলে বীজ ছেদিত স্থানে থাকিয়া যায় । ফলে চৰ্ম্মের মধ্যে বীজ প্রবেশ ও শোধিত করাই টকা দেওয়ার উদেশ্য। একস্থানে টীকা দিলে যদি না উঠে, এই আশঙ্কা নিবারণ জন্য প্রত্যেক বাহুতে 2 ইঞ্চি অস্তুর অন্তর অন্ততঃ তিন স্থানে টকা দেওয়া কৰ্ত্তব্য। শলাকায় শুষ্কবীজ থাকিলে অগ্রে উহাদিগকে উষ্ণজলে বা ৰাম্পে দ্রব করির ছেদমুখে লাগাই দিতে হয়। অনেক ডাক্তার সমান্তরভাবে কতকগুলি আঁচড় দেয়, কেহ কেহ ঢেরাকাটা করিয়া ত্বকু ছেদন করে, আবার কেহ কেহ প্রায় দুয়ানি সমান স্থানে কতকগুলি চোট দিয়া উহাতে ৰীক্ষ মাখাইয়া দেয় । অনেকে আবার একদিকে কতকগুলি বিধ দিয়া পরে ঐ সকলকে ঢেরাকাটা করিয়া কাটয় দেয়। এই শেষোক্ত প্রকারে টীকা দেওয়াই ডাঃ সিটনের মতে সৰ্ব্বোৎকৃষ্ট। ভাল টকা দেওয়া হইলে ঐ স্থান ২/৩ দিনে ঈষৎ ফুলিয়া উঠে, ৩/৪ দিনে লাল ও শক্ত হয় এবং ৫৬ দিনে মধ্যভাগ অবনত আনীল শ্বেতবর্ণ ফুস্কুড়ি হইয়া উঠে । ইহাতে পুঞ্জ জন্মে। অষ্টম দিবসে টাকা পূর্ণাবস্থা প্রাপ্ত হয়। নবম ও | দশম দিবসে ইহার চারিদিক রক্তবর্ণ হইয়া ফুলিয়া উঠে, | একাদশ দিবসে ফুস্কুড়ি আরও স্ফীত হইলে মধ্যভাগের অবমতি দূর হয় । চারিদিকের ফুলা স্থান ১ ইঞ্চ হইতে প্রায় ৩ ইঞ্চ পৰ্য্যস্ত ব্যাসযুক্ত হইয়া থাকে । ইহার পর ত্রয়োদশ কি চতুর্দশ দিবসে ব্রণ শুষ্ক হইতে আরম্ভ হয় এবং সচরাচর তাহার পর সপ্তাহ মধ্যে শুকাইয়া খুন্ধি উঠিয়া যায়। পশি । দিন পর্য্যন্ত প্রায় ফুস্কুড়ি থাকে না । গোল উঠিয়া ঐ স্থান গোল, আজীবন লোমশুষ্ঠ, চিঙ্কণ, ঈষৎ নিম্ন এবং বিন্দুময় ৰ সূক্ষ ছিদ্রযুক্ত হইয়া থাকে। { లిసిన } छोको টtrা উঠিলে প্রায়ই চৰ্ম্মে কৃষ্মত, পাকমন্ত্রের বিশৃঙ্খলা, বগলের শির ফুলা প্রভৃতি উপদ্রব দেখা যায়। এই সকল উপসর্গ অধিক যন্ত্রণাদায়ক না হইলেও প্রায় ফাক যায় না । शैकाद्र श्राश्नत्रिक खे°नcर्गब्र अछ फ़िकि९नांब्र अध्यायन श्झ् नीं । श्रह्मक नभम्न छैौक अमथ नैौर्षकांब्झांप्रैौ श्ध्न कि५द! अडि नैच्च ७कहेिब्र यांग्र। ८य प्लेको ौठिभज्र खेग्नि निम्नभिङ क्रप्° ७रूॉब्र ठाशहे दगढनिदाब्रक, ऐशब्र अछथा श्रेष्ण ८न টীকায় ফল হয় না। ७थाग्नहे ८मथ शोग्न ८य श्रक्षिको१. श्रृण प्लेको कि निम्नझ मऊ ठेष्ठं न । हेश नांन! कांग्नt१ श्ब्र। थारक । ॐश्वभङ: টকাদারগণ অনেকস্থলেই বিশেষ অভিজ্ঞ নহে এবং উপযুক্ত পরিমাণে বীজ প্রয়োগ করে না। দ্বিতীয়তঃ বীজের অনুপ যোগিতা, তৃতীয়তঃ যত্ন ও সতর্কতার অভাব, ইহাতে অনেক সময় টকা নিস্ফল না হইলেও অভিপ্রেত ফলোৎপাদন করে না ; চতুর্থত: টকা হইতে প্রত্যক্ষভাবে বীজদ্বার সঙ্গে সঙ্গে টীকা না দিয়া বহু পুরাতন বীজ ব্যবহার। ডাঃ লিটন সাহেব পরীক্ষা করিয়া বলেন, যে পুর্ণরূপে টীকা দেওয়ার ফল অসম্পূর্ণ টীকার অপেক্ষ ৩০ গুণ বসন্তনিবারক এবং সৰ্ব্বাপেক্ষা নিকৃষ্ট টীকাও একবারে টীকা না দেওয়া অপেক্ষ ৪৭ গুণ বসন্তনিবারক । আরও দেখা গিয়াছে যে, টীকা লইবার পরও যদি বসন্ত হয়, তাহা হইলে উছা তত মারাত্মক হয় না এবং আরোগ্য হইলে শরীরকে ও তত বিকৃত করিয়া ফেলে না । একবার টক হইলে পর কত দিন ইহার শক্তি থাকে, उांश् ५१न ७ श्ब्रि श्ब्र बांई ! शाश् छ्डेंक गर्थन ८मश्र যাইতেছে যে একবার বসন্তপ্ৰপীড়িত ব্যক্তি পুনরায় বসন্তরোগাক্রান্ত হইতেছে, তখন অন্তত: ৭ বর্ষ অস্তুর টীকা লওয়া উচিত। টকা দস্তুরমত না উঠিলে আরও শীঘ্র টীকা লইলে অনেকটা নিরাপদ থাকে । কোন কোন ডাক্তার ৩ বৎসর বা তদপেক্ষা ও শীঘ্র শীঘ্র টীকা লইতে পরামর্শ দেন । টীকার বীজ লইয়া অনেক বিপদ ঘটিতে পারে। যে শিশুর টীকা হইতে বীজ লওয়া হয়, উহার কুষ্ঠ, উপদংশ প্রভৃতি রোগের সংস্রব থাকিলে তত্ত্বৎ রোগ সহস্র বালকমণ্ডলীতে ব্যাপ্ত হইতে পারে । এজন্য ঐ শিশুর পিতা মাতার কোন সংক্রামক ব্যাধি আছে কি না পরীক্ষা করা কৰ্ত্তব্য। আবার অনেক ডাক্তারের মত এই যে, টকা দ্বারা ব্যাধি সংক্রামিত হয় না । মহুষ্য ও গোরুর সম্বরোগের পরস্পর সম্বন্ধ বিষয়ে भय्tङण श्रांtइ । ऽां:, cछनग्न दtशन cर, उांश दां खदिक