পাতা:বিশ্বকোষ সপ্তম খণ্ড.djvu/৬২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তাড়িত शांफूज अशहरू बिन्निडे कब्रिब्रा थाछूछांभ८क शृथक् कब्रिाउ *ांब्र! यांग्र वणिग्रा ठांफ़िऊथदांश् चांछ कांग शिक्लेिग्न कांग्रज ব্যবহৃত হয়। কোন পদার্থের গায়ে রূপা, সোণ, তাম, নিকেল প্রভৃতি ধাতুর একটা স্বগ্ন আস্তরণ দেওয়াকে গিণ্টি করা বলে। এই সকল ধাতুঘটিত কোন লাবণিক পদার্থ জলে দ্রব করিয়া তন্মধ্যে তাড়িতপ্রবাহ চালিত কর । যে দ্রব্যের গায়ে গিণ্টি করিতে হইবে, তাহাকে দস্তালগ্ন তারে আটকাইয়া সেই দ্রবমধ্যে ডুবাও । অচিরে উহার গায়ে ধাতুময় স্বল্প আবরণ জমিবে । কোন দ্রব্যের উপর একটু कूल श्राखन्न% छभाद्देब्र| उँहान्न झैँच्न ८ऊाणा क्रप्ण । (৩) যে তার দিয়া তাড়িত-প্রবাহ চলিতেছে, উহাকে একটা চুম্বকের কাটার উপরে সমান্তরাল ভাবে ধরিলে কাটাটা তখনি ঘুরিয়া তারের সহিত লম্ব ভাবে দাড়াইবার চেষ্টা করে । চুম্বকের কাট। স্বভাবতঃ উত্তর দক্ষিণে থাকে, তারটাকে তাহার নিকটে উত্তর দক্ষিণে ধরিলে কাটা ঘুরিয়া যায়। পৃথিবীর চৌম্বক বল কঁাটাকে উত্তর দক্ষিণে রাখিতে চায় ; আর তাড়িতগ্রবাহ উহাকে লম্বভাবে অর্থাৎ পূৰ্ব্বপশ্চিমে রাখিতে চায় । ফলে কঁাটাটা মাথা মাঝি হেলিয়া রহে । তারবাহিত প্রবাহ যদি দক্ষিণ হইতে উত্তরমুখে চলে, আর র্কাটা তারের নীচে থাকে, তাহা হইলে কাটার উত্তরবর্তী মুখ বামে বা পশ্চিমদিকে ঘুরিয়া যায় ও দক্ষিণবর্তী মুখ ডাহিনে পূৰ্ব্বমুখে যায়। একটা উল্টাইলে আর সমস্ত উণ্টায়। চুম্বক শলাকাকে তাড়িতপ্রবাহের এইরূপ খুৱাইবার শক্তি থাকায় টেলিগ্রাফ বা তাড়িত-বার্তাবহের স্বষ্টি । কলিকাতায় তাড়িতকোষ আছে, দিল্লীতে চুম্বকের কাটা আছে । কলিকাতার কোষ হইতে তার বাহির হইয়া দিল্পী চলিল, আবার সেখানে চুম্বকের কাটার নিকট হইতে ফিরিয়া কলিকাতার কোষে আসিল । প্রবাহ কলিকাতা হইতে তার পথে দিল্লী গেল, সেখানে কাটা ঘুরাইয়া দিয়া আবার তারপথে কলিকাতার কোষে ফিরিয়া আসিল। ফিরিবার সময় তার পথে না আসিয়া ভূমিপথে আসিলেও চলে। ভূমিপথে পরিচালকতাও অধিক, খরচও কম। কাজেই कनिकालाइ बगिब्र रेङ्गड झोिप्ड श्वत्रुद्र कैप्टे श्रृङ्ख्याहेब দেওয়া চলে। চুম্বকের কাটা খুৱালেই সঙ্কেত হইল। কটাটা পাচরকমে দুরাইয়৷ পাচরকম সঙ্কেত প্রেরণের জন্য বিবিধ কৌশল প্রচলিত আছে। আজ কাল এদেশে টেলিগ্রাফ ষ্টেশনে মোর্সের পদ্ধতিতে সঙ্কেত করা হয়। উছাত চুম্বকगध ७कन्नै शफूफ़ैौ प्लेकू फेकू कब्रिग्ना नानादि६ भक कtब्र, [ ७२० ] छांधूंछ अषद ५क्षांना काशएज बँीरु कitछे । uहे नच छनिद्रां ग्रू डर्बक cभथिब्र गएकउ निक्लनििष्ठ झ्म्ल । dहेशिक्षांकि ७धन *रूछे अक७,७ चडब विष्ठ श्रेबाज़ाहेब्रटिश् । बर्डमान প্রবন্ধে সে সমুদয় উল্লেখের স্থানাভাৰ। [ভাঙ্কিতবার্তা দেখ।] ७ोब्रत्यांप्श यबाश् निम्भब भय्था दइपूरङ्ग नौउ श्छ। अबाक्ष् কতক্ষণে কতদূর চলে তাহার কোন নির্দিষ্ট হিসাব নাই। বস্তুতঃ তাড়িত-প্রবাহের কোনরূপ নির্দিষ্ট বেগ নাই। আজ কাল মহাসাগরের ভিতর দিয়া এক মহাদেশ হইতে অন্ত মহাদেশে সঙ্কেত প্রেরিত হইতেছে । এই সকল তারের প্রতিবন্ধ এত ৰেণী, যে তাড়িত-প্রবাহ তন্মধ্যে অত্যন্ত ক্ষীণ হইয়া যায়। এত ক্ষীণ হয়, যে সহজে চুম্বকের কাটা নড়াইতে পারে না । এক ষ্টেশনে তার কোষে লগ্ন করিবামাত্র তারে একটা তাড়িতের ধাক্কা পড়ে । সেই ধাক্কাটা আবার দূরস্থ অন্ত ষ্টেশনে পৌছিতে একটু সময় লাগে। সেই ধাক্কাটা আসিয়া পৌছিলে সঙ্কেত পাওয়া যায় । এইরূপ স্থলে সঙ্কেত সুচারুরূপে পাইবার জন্ত প্রথমে বড় কষ্ট হইয়াছিল । গ্লাসগোর অধ্যাপক সর উইলিয়ম টম্পনের প্রতিভা সকল বাধা বিঘ্ন পরাজয় করিয়া তাহার নাম জগদ্বিখ্যাত করে। এই টমসনই এক্ষণে লর্ড কেলবিন নামে পরিচিত । তাড়িত-প্রবাহ মাপিবার উপায় ---প্রতি সেকেণ্ডে তার দিয়া কতটা তাড়িত চলিতেছে স্থির করিয়া প্রবাহের পরিমাণ হয় । দুই উপায়ে এই পরিমাণ সহজ । জল বা অল্প তরল পদার্থ কত সময়ে কতটা বিশ্লেষিত হইল দেখিয়া প্রবাহের প্রাবল্য বা ক্ষীণত বুঝা যাইতে পারে। অথবা চুম্বকের कॅप्लेटिक कठफे चूब्राहेब्रा मिल ठांश cमथिब्रां७ ७थदांtश्द्र পরিমাণ হয়। প্রবাহ যত প্রবল হইবে, চুম্বকপ্রতি তৎপ্রযুক্ত বলও তত অধিক হইবে । প্রবাহ যদি নিতান্ত ক্ষীণ হয়, তবে তারটাকে এক পাকের বদলে কয়েক পাক কাটার क्लोब्रिएिक ८रुहेन कब्रिएउ झ्म्न । गऊ श्रृंोक ८दप्टेन tिव, প্রবাহের বলও তত গুণ বাড়িবে। চুম্বকের কাট বাক্সে यूगाहेब्रा वांtञ्चन्न शां८ग्न ऊांब्र अफ़ाहे८ण ; उॉफ़ि८ठद्र धवांश्गांगक बल्ल ६ठब्रांब्र इग्न । हेशंद्र हेश्ब्रांजि नांभ (Galvano meter. ) उॉफ़िउ-थबांtश्ब ठूषकफ् -उॉफ़िउ-अंबांश् छूष८क्ब्र কাটা খুরাইয়া দেয়। বস্তুতঃ তাড়িতপ্রবাহ স্বয়ংই সৰ্ব্বাংশে চুম্বকধৰ্ম্মযুক্ত। একটা চুম্বকের চারিপার্শ্বস্থ প্রদেশে যে যে ব্যাপার ঘটে, তাড়িত-প্রবাহের পাশ্বন্থ এদেশেও ঠিক cनहे cनई दTाणांद्र थt8 । ठांrब्रग्न ७कछे जांशी ८ङब्रॉब्र