পাতা:বীরজয় উপাখ্যান.pdf/৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

(২৮)


সহিত সদ্ভাব, ভৃত্যাগণের উপর স্নেহ, ও প্রজাদিগের মনোরঞ্জন করত কিছুকাল রাজত্ব করিতে লাগিলেন। তাঁহার নম্বতা, সুশীলতা, শিষ্টতা ও প্রজাবৎসল্যের যশ-সৌরভ দেশ বিদেশে বিস্তারিত হইল। বীরজয় এইৰূপে রাজত্ব করিতে করিতে তাঁহার প্রণয়িনীর গৰ্বে এক পরমসুন্দর পুত্ৰ হইল, তাহার নাম রমণীমোহন। উপযুক্ত সময়ে সন্তানের বিদ্যাভ্যাস জন্য শিক্ষক নিযুক্ত করিয়া দিলেন। কিছুদিনপরে বীরজয়ের সুখান্বেষণে বাঞ্চা হইল এবং এই মনোরথ সফল জন্য পুনৰ্ব্বার দেশভ্রমণে প্রবৃত্ত হইলেন। নানা নদ নদী উপত্যকা ও পৰ্ব্বত উত্তীর্ণ হইয়া অবশেষে একজনাকীর্ণ নগরে পৌঁছিলেন। অনুমান করিলেন, এই নগর অতি প্রসস্থ, চতুর্দিকে পুষ্প ও ফল বৃক্ষ, মধ্যে মধ্যে নিৰ্ম্মল পুষ্করিণী নানা মৎসের দ্বারা ব্যাপ্ত, সুগন্ধিত মলয়ানিল নিয়ত বহন হইতেছে এবং যত ধনীব্যক্তিদের বশতি, অতএব যথার্থ সুখ এই স্থানেই আছে। এই মনে করিয়া বীরজয় ছদ্মবেশ ধারণকরত সুখন্বেষণে প্রবৃত্ত হইলেন।