পাতা:বৈকুন্ঠের উইল - শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.pdf/৬৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

বৈকুণ্ঠের উইল V& বলে দিয়ে যাচ্চি-এদিকে ঈশের মূল আছে। নিমাই রায়বন্দিপাড়ার নিমাই রায়, সােজা লােক নয়, তা জেনে রেখা। ভবানী ক্ৰোধ ভুলিয়া অত্যন্ত আশ্চৰ্য্য হইয়া জিজ্ঞাসা করিলেন, বিনোদ নালিশ করবে, এ কথা তোমাকে কে বললে ? গোকুল কহিল, সবাই বললে। কে না জানে যে, বিনোদ আমার নামে নালিশ করবে ? ভবানী বলিলেন, কই আমি তা জানি নে । আচ্ছা, জােন কি না, সে আমরা দেখে নিচ্চি ! বলিয়া গোকুল সক্রোধে ঘর ছাড়িয়া চলিয়া যাইতেছিল, কিন্তু ফিরিয়া দাড়াইতেই সহসা তাহার শ্বশুরের কথাটাই মুখ দিয়া বাহির হইয়া গেল, তোমাদের মত শক্ৰদের আমি ত আর বাড়িতে রাখতে পারি। নে ! কিন্তু কথাটার সঙ্গে সঙ্গে তাহার রুদ্রমূৰ্ত্তি ভয়ে বিবৰ্ণ এবং ক্ষুদ্র হইয়া গেল। কিন্তুর্থ্যাধের আকৃষ্ট ধনুর সম্মুখ হইতে ভয়াৰ্ত্ত মৃগ যেমন করিয়া দিগ্বিদিক জ্ঞানশূন্য হইয়া ছুটয়া পলায়, গোকুলও ঠিক তেমনিভাবে মায়ের সুমুখ হইতে সবেগে পলায়ন করিল। সে যে কি কথা বলিয়া ফেলিয়াছে, তাহা সে জানে ; তাই সেদিন সমস্ত দিবা-রাত্রির মধ্যে কোথাও তাহার সাড়া শব্দ পৰ্য্যন্ত পাওয়া গেল না। কুটুম্ব-ভোজনের সময়েও সে উপস্থিত রহিল না। ভবানী প্রশ্ন করিয়া জানিলেন, বড়বাবু জরুরি তাগাদায় বাহির হইয়া গিয়াছেন ; কখন আসিবেন কাহাকেও বলিয়া যান নাই। নিমাই রায় কৰ্ম্মকৰ্ত্ত সাজিয়া আদায়আপ্যায়ন কাহাকেও কম করিলেন না। বাহিরের নিমন্ত্রিত যে