পাতা:ব্যবসায়ে বাঙালী.djvu/৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ব্যবসায়ে বাঙালী ύ"3: অৰিবাহিত জীবন,ম্যাটিকুলেশন পৰ্য্যন্ত শিক্ষা ব্যবসায় শিক্ষার পৃক্ষে জীবনের ঐ প্রশস্ত সময়। হাতে কলমে কাজ শিখিয়া দস্তুরমত যাহারা অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করিয়া কারবার আরম্ভ করে, ভাগ্য-লক্ষ্মী তাহাদের আকৃপা করিতে বড় দেখা যায় না । יו বেলগাছিয়ায় কালিপদ ভট্টাচার্ধ নামক জনৈক ব্যবসায়ী প্রথমজীবনে তারিণীচরণ সাধুর্থার তেলের কারবারে চাকুরী করিতেন। ১২২ টাকা ছিল তাহার মাহিন । কয়েক বৎসর পরে বেলগাছিয়ার প্রসিদ্ধ ব্যবসায়ী vরাইচরণ সাধুখ মহাশয়ের মূলধনের সাহায্যে চারি আন অংশীদার হিসাবে তিনি পাইকারী মুদিখান কারবার আরম্ভ করেন । উহাতে তিনি বড় বড় মহাজন ও দালালের সহিত বিশেষভাবে পরিচিত হইয়া পড়েন। পরে উক্ত ভট্টাচাৰ্য্য মহাশয় মাত্র ১৪০০ টাকা মূলধনে নিজেই পৃথক্ভাবে কারবার আরম্ভ করিয়া ৪৫ বৎসরের মধ্যে ৫০/৬০ হাজার টাকার ব্যবসায় চালাইতেছেন । এই প্রকারের আরও বহু দৃষ্টান্ত উল্লেখ করা যাইতে পারে। কি ইউরোপে, কি আমাদের দেশে যে-সমস্ত লোক ব্যবসায়ে বিশিষ্ট স্থান অধিকার করিয়াছেন, র্তাহীদের পাঠ্য-জীবন অনুসন্ধান করিলে দেখিতে পাই যে, কেহই বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রীধারী ছিলেন না, এবং তাহারা সকলেই প্রায় প্রথম জীবন হইতেই ব্যবসায়ে শিক্ষালাভ করিয়াছিলেন । পরলোকগত ভূপেন্দ্রনাথ বন্ধ যখন বিলাতে ‘ইণ্ডিয়া কাউন্সিলের’ সদস্ত ছিলেন, তখন তাহার জনৈক সহকৰ্ম্মীকে (ইনি কোন বড় ব্যান্ধের সহিত সংশ্লিষ্ট ছিলেন ) একটী বাঙালী যুবককে ব্যাঙ্কের কাজে শিক্ষানবিশ লইতে অনুরোধ করেন । সহকৰ্ম্মী ব্যাক্তিটি যখন জানিতে পারিলেন যে যুবকটি গ্রাজুয়েট এবং তাহার বয়স ২২ বৎসর, তখন , মাথা নাড়িয়া বলিলেন—“তরুণ বন্ধু, তুমি তোমার জীবনের শ্ৰেষ্ঠ, অংশ অপব্যয় করিয়াছ, এবং আমার আশঙ্কা হয়, ব্যাঙ্কের কাজ ।