পাতা:মহারাষ্ট্র-নৃপেন্দ্রকুমার বসু.djvu/৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


懿引 पूषणबृष्म वर्शोब्रह्रै ধরিয়া যুদ্ধের পর, রসদ ফুরাইয়া যাওয়ায়, বিজাপুর ও আহমেদ, নগরের সন্মিলিত সৈন্যদল ছত্রভঙ্গ হইয়াপড়িল। ক্ষতে ঐ ও উাহার হস্ত-চালিত বালক মুলতান মুঘলের হাতে বন্দী হইলেন। গোযেচারী মুলতান শেষে আজীবন গোয়ালিয়র যুগে আটক হইয়া রছিলেন । বিজাপুরী সৈন্যদল কিন্তু তাহদের শৃঙ্খলা যথাসাধ্য বজায় রাশিয়া, যুদ্ধ করিতে করিতে, ধীরে ধীরে পিছু ছঠিতে লাগিল। মুঘল সেনাপতি মোকং খাঁ তাহাদিগকে তাড়া করিয়া অনেক দূর হঠাইয়া জানিলেন ঘটে, কিন্তু একটা স্থান নিবন্ধ নিশ্চিত যুদ্ধে शनिग्न अनिश, छाशगिक अश्न आक्र कश्रिाद्र शर्याण পাইলেন না। এই সময়, সম্রাট শাহজাহানের দ্বিতীয় পুত্র শাস্বল্প দক্ষিণাত্যের হার হইয়া আসিলেন। তখন ীেলতাবাদে অনেকাশে একটা অনিশ্চয় ল্খিলার মধ্যে; বিঙ্গাপুরের সহিত যুদ্ধও প্রায় অচল হইয়া রহিয়াছে। কিছুদিন পরে বিজাপুর-স্কুলতা মোহাম্ম আদিল শাহ, মোগল গুক্তি দুৰ্ভেদ্য পুরন্দর স্বর্গ কড়িয়া লইলেন। শাহ,স্বল্প ও মোহব্বং খাঁ যুগ’ অবরোধ করিয়া কিছু করিতে পারলেন না। বরং বিজাপুরের আফগানী ও মারাঠী সৈন্যদলের দাপটে অস্থির হইয়া, তাহারা কুণিপুরে পলাইয়া গিয়া রক্ষা পাইলেন। এই গোলমালের মধ্যে শাহী ভোলে কীর্তীতে মহিয়৷ গিয়া এক জলস্তব কাণ্ড ঘটাইয়া বসিলেন। তিনি তলে তলে কতকগুলি মারাঠী দেশমুখ ও কোদারদের স্ববশে অনিয়া,