পাতা:যশোহর-খুল্‌নার ইতিহাস প্রথম খণ্ড.djvu/৪৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

S)\\. যশোহর-খুলনার ইতিহাস। স্বর, আবার সেই দীনতা হীরাকে পরদিন আসিতে বলিল। হীরা সে সামুনয় ভাষায় দ্বিরুক্তি না করিয়া পুনরায় চলিয়া গেল । তৃতীয় দিনে আবার হীরা আসিল। কিন্তু সে হীরা আর নাই ; বিবেক তাহাকে সংশোধিত করিয়াছে ; পূৰ্ব্বজন্মের কোন অজানিত পুণ্যফলে এক অপূৰ্ব্ব নিৰ্ব্বেদ আসিয়া অলক্ষিতে তাহার হৃদয় অধিকার করিয়াছে। সেই হৃদয় লইয়া হীরা সামগায়ীর ঝঙ্কারধ্বনিবৎ আবার হরিনামের মধুর ঝঙ্কার শুনিল। সে একেবারে বিমুগ্ধ হইয়া গেল। আজ, হরিদাস একটু সকালে জপ শেষ করিয়৷ উত্থান করিবামাত্র হীরা গিয়া তাহার পদপ্রান্তে বিলুষ্ঠিত হইয়া পড়িল। ভক্তসংস্পর্শে এক সঞ্জীবনী শক্তি সঞ্চারিত হইল। হীর বারংবার আত্মকৃত পাপজীবনের কাহিনী বিবৃত করিয়া ক্ষমা ভিক্ষা করিতে লাগিল। রাগদ্বেনিযুক্ত সাধু তাঁহাকে অম্লানবদনে ক্ষমা করিলেন। তাছাকে ধৰ্ম্মেপদেশ দিলেন, নামমহিমা কীৰ্ত্তন করিয়া নাম জপ শিথাইলেন। অবশেষে হীরাকে নিজের কুটীরে রাখিয়া স্বয়ং সে দেশ পরিত্যাগ করিলেন। হীরা আর সে হীরা নাই ; রামচন্দ্র ভাবিয়াছিলেন এক, হইল অন্ত। পরকে ভূলাইতে হীরাকে পাঠাইলেন, হীরা নিজেই ভুলিয়া গেল। হীরা গুরু হরিদাসের আদেশে বিলাস-বিভ্রাট ত্যাগ করিল, সৌধীন বস্ত্ৰালঙ্কার পরিত্যাগ করিয়া মোট কাপড় পরিল, মস্তক মুগুন করিয়া সযত্নবন্ধিত সুন্দর কেশরাশি জগন্নাথের চরণে সমর্পণ করিবার জন্য তুলিয়া রাখিল । তবে সেই বেষ্ঠ গুরুর আজ্ঞা লইল । গৃহবিস্তু যেব ছিল ব্রাহ্মণেরে দিল ॥ মাথামুড়ি এক বস্ত্রে রহিল সে ঘরে । রাত্রি দিনে তিন লক্ষ নাম গ্রহণ করে ॥ (চৈতন্যচরিতামৃত ) হীরা গৃহবিত্ত শুধু ব্ৰাহ্মণকে দিয়াছিল না ; সে তাহার পাপার্জিত অর্থ লোকসেবায় নিয়োজিত করিয়া পরমার্থ লাভের পন্থী প্রস্তুত করিয়াছিল। হীরার উপর আদেশ ছিল, সে সমস্ত কাৰ্য্য শেষ করিয়া অচিরে জগন্নাথ যাইবে। তাহার একটা কারণ, রামচন্দ্র তাহার উপর রাগ করিয়া অত্যাচার করিতে পারেন। কিন্তু সে দেশে রামচন্দ্রকে ভয় করিত না একজন মাত্র, সে হীরা নিজে । সে