পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) প্রথম খণ্ড.pdf/৫২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শৈশবসঙ্গীত হরহৃদে কালিকা কে তুই লো হরহৃদি আলো করি দাড়ায়ে, ভিখাস্ত্রীর সর্বত্যাগী বুকখানি মাড়ায়ে ? নাই হোথা স্থখ-আশা, বিষয়ের কামনা, নাই হোথা সংসারের— পৃথিবীর ভাবনা ! আছে শুধু ওই রূপে বুকখানি ভরিয়ে— আছে শুধু ওই রূপে মনে মন মরিয়ে । । বুকের জলন্ত শিল্পে রক্তরাশি নাচায়ে, পাষাণ পরাণখানি এখনও বাচায়ে, নাচিছে হৃদয়মাঝে জ্যোতিৰ্ম্ময়ী কামিনী, শোণিততরঙ্গে ছুটে প্রস্ফুরিত দামিনী । ঘুমায়েছে মনখানা, ঘুমায়েছে প্রাণ গো, এক স্বপ্নে ভরা শুধু হৃদয়ের স্থান গো ! জগতে থাকিয়। অামি থাকি তার বাহিরে, জগৎ বিদ্ধপছলে পাগল ভিখারী বলে— তাই অামি চাই হতে, আর কিবা চাহি রে ! ভিখারী করিব ভিক্ষ। বাৰাস্বর পরিয়ে, বিমোহন রূপখানি হৃদিমাঝে ধরিয়ে । একদল প্রলয়শিঙ্গ বাজিয়া রে উঠবে । অমনি নিভিবে রবি, আমনি মিশাবে তারা, অমনি এ জগতের রাশয়জু টুটিবে । আলোকসৰ্ব্বস্ব হার1 অজ ৰত গ্রহ তায় । দারুণ উন্মাদ হয়ে মহাশূন্তে ছটিবে । ঘুম হ’তে জাগি উঠি রক্ত জাৰি মেলিয়া প্ৰলয় জগৎ লয়ে বেড়াইৰে খেলিয়া । প্রঙ্গল্পের তালে তাঙ্গে এই হৃদ্ধি বাজিবে । 8>气