পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> >br> রবীন্দ্র-রচনাবলী তুলিছে আলোড়ি অমৃতজ্যোতি, র্তাহারে নমস্কার । ৩ অগস্ট ১৯৩৫ শাস্তিনিকেতন আশ্বিনে আকাশ আজিকে নির্মলতম নীল, উজ্জল আজি চাপার বরন আলো ; সবুজে সোনায় ভূলোকে ছালোকে মিল দূরে-চাওয়া মোর নয়নে লেগেছে ভালো । ঘাসে ঝ’রে-পড়া শিউলির সৌরভে মন-কেমনের বেদনা বাতাসে লাগে । মালতীবিতানে শালিকের কলরবে কাজ-ছাড়া-পাওয়া ছুটির আভাস জাগে । এমনি শরতে ছেলেবেলাকার দেশে রূপকথাটির নবীন রাজার ছেলে বাহিরে ছুটিতে কী জানি কী উদ্দেশে এপারের চিরপরিচিত ঘর ফেলে । আজি মোর মনে সে রূপকথার মায়া ঘনায়ে উঠিছে চাহিয়া আকাশ-পানে ; তেপান্তরের স্থদূর আলোকছায়া ছড়ায়ে পড়িল ঘরছাড়া মোর প্রাণে । মন বলে, ‘ওগো অজানা বন্ধু, তব সন্ধানে আমি সমূত্রে দিব পাড়ি । ব্যথিত হৃদয়ে পরশরতন লব চিরসঞ্চিত দৈন্তের বোঝা ছাড়ি । দিন গেছে মোর, বৃথা বয়ে গেছে রাতি, বসন্ত গেছে দ্বারে দিয়ে মিছে নাড়া ; খুঁজে পাই নাই শূন্ত ঘরের সাথি — বকুলগন্ধে দিয়েছিল বুঝি সাড়া ।