পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (একাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अरौञ्ज-ब्रठमांयलौ • د 8 . ঠেকিয় সে কোনো আশার পথ দেখিতেছে না। বাস রে! এমন নীরণ এ বেষ্টন, এমন আশ্চর্য পাকা গাথনি ! বাহাদুরি অাছে বটে, কিন্তু শ্রেয় অাছে কি । চারি দিকে তাকাইয়া শ্রেয় কোনখানে দেখা যাইতেছে জিজ্ঞাসা করি। ঘরে বাহিরে কোথায় সে আছে। অচলায়তনে আমার সেই বেদনা প্রকাশ পাইয়াছে। শুধু বেদন নয়, আশাও আছে। ইতিহাসে সর্বত্রই কৃত্রিমতার জাল যখন জটিলতম দৃঢ়তম হইয়াছে তখন গুরু আসিয়া তাহ ছেদন করিয়াছেন। আমাদেরও গুরু আসিতেছেন। দ্বার রুদ্ধ, পথ দুর্গম, বেড়া বিস্তর, তবু তিনি আসিতেছেন। তাহাকে আমরা স্বীকার করিব না, বাধা দিব, মারিব ; তবু তিনি আসিতেছেন ইহা নিশ্চিত । দোহাই আপনাদের, মনে করিবেন না, অচলায়তনে আমি গালি দিয়াছি বা উপদেশ দিয়াছি। আমি প্রাণের ব্যাকুলতায় শিকল নাড়া দিয়াছি ; সে শিকল অামার, এবং সে শিকল সকলের । নাড়া দিলে হয়তো পায়ে বাজে। বাজিবে না তো কী ! শিকল যে শিকলই সেই কথাট। যেমন করিয়া হউক জানাইতেই হইবে। যে নিজে অনুভব করিতেছে সে অনুভব না করাইয়া বাচিবে কী করিয়া । ইহাতে মার থাইতে হয় তো মার খাইব। তাই বলিয়া নিরস্ত হইতে পারিব না। গালিকেই আমার চেষ্টার সার্থকতা মনে করিয়া আমি মাথায় করিয়া লইব, আর-কোনো পুরস্কার চাই না। ইতি ২৭শে অগ্রহায়ণ ১৩১৮ ললিতকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় মহাশয়ের পুত্র শ্ৰীযুক্ত সলিলকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় মহাশয় এই চিঠিগুলি রক্ষা করিয়াছিলেন, তিনি অনুগ্রহপূর্বক এগুলি আমাদের ব্যবহার করিতে দিয়াছেন । অধ্যাপক এডওআর্ড, টমসন রবীন্দ্রনাথ সম্বন্ধে তাহার পুস্তকে অচলায়তনে কোনো কোনো ইংরেজি গ্রন্থের ছায়া আছে, এইরূপ উক্তি করেন। রামানন্দ চট্টোপাধ্যায় মহাশয়কে একটি চিঠিতে (৩ আষাঢ় ১৩৩৪ ) রবীন্দ্রনাথ এ সম্বন্ধে লেখেন— Castle of Indolence age Faerie Queen stf of firPrincessএর সঙ্গে অচলায়তনের সুদূরতম সাদৃশু আছে বলে আমার বোধ হয় না। আমাদের নিজেদের দেশে মঠ-মন্দিরের অভাব নেই— আকৃতি ও প্রকৃতিতে অচলায়তনের সঙ্গে তাহাদেরই মিল আছে। > Its fable was probably suggested by The Princess, and, more remotely, The Castle of Indolence and The Faerie Queen- Edward Thompson in Влвгковлклтн Тлаoви : Роитлмо Dвлмлттвт, р. 225.