পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী দিনের চুরাশা স্বপনের ভাষা রচিবে অন্ধকারে ? যদি রাত হয়—না করিব ভয়,— চিনি যে তোমারে চিনি। চোখে নাই দেখি, তবু ছলিবে কি, হে গোপন-রঙ্গিণী ? নিমেষে আঁচল ছুয়ে যায় যদি চলে তৰু সব কথা যাবে সে আমায় বলে, তিমিরে তোমার পরশ-লহরী দোলে হে রস-তরঙ্গিণী । হে আমার প্রিয়, আবার ভুলিয়ো, চিনি যে তোমারে চিনি । ফাঙ্কন, ১৩৩০ শেষ অর্ঘ্য যে-তারা মহেন্দ্রক্ষণে প্রত্যুষবেল প্রথম শুনাল মোরে নিশাস্তের বাণী শাস্তমুখে নিখিলের আনন্দমেলায় স্নিগ্ধকণ্ঠে ডেকে নিয়ে এল ; দিল আনি ইন্দ্রাণীর হাসিখানি দিনের খেলায় প্রাণের প্রাঙ্গণে ; যে সুন্দরী, যে ক্ষণিক নিঃশব্দ চরণে আসি, কম্পিত পরশে চম্পক-অঙ্গুলি-পাতে তন্ত্রাযবনিকা সহস্তে সরায়ে দিল, স্বপ্নের আলসে ছোয়াল পরশমণি জ্যোতির কণিকা ; অস্তরের কণ্ঠহারে নিবিড় হরষে প্রথম দুলায়ে দিল রূপের মণিকা ; এ-সন্ধ্যার অন্ধকারে চলিচু খুজিতে,