পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


స్త్రి - ब्रवैौटज-ब्रळ्नांव लौ శః" BBBDB DDD DBB BDS DDD BBB BBBBB BBBB DBB BBS আমাদের পক্ষে তেমন অসাধ্য হয় না । ভক্তের হৃদয়ের ভিতর দিয়ে তোমার ষে মধুময় প্রকাশ ভক্তের জীবনের উপর দিয়ে তোমার প্রসন্ন মুখের ষে প্রতিফলিত দ্বিন্ধ রশ্মি, সেও তোমার জগন্ধ্যাপী বিচিত্র আত্মদানের একটি বিশেষ ধারা ; ফুলের মধ্যে ৰেমন তোমার গন্ধ, ফলের মধ্যে যেমন তোমার রস, ভক্তের ভিতর দিয়েও তোমার আত্মদানকে আমরা যেন তেমনি আনন্দের সঙ্গে ভোগ করতে পারি। পৃথিবীতে জন্মগ্রহণ করে এই ভক্তিস্বধা-সরস তোমার অতি মধুর লাবণ্য ধেন আমরা ন দেখে চলে ন যাই । তোমার এই সৌন্দর্য তোমার কত ভক্তের জীবন থেকে কত রং নিয়ে যে মানবলোকের আনন্দকানন সাজিয়ে তুলেছে তা যে দেখেছে সেই মুগ্ধ হয়েছে। অহংকারের অন্ধতা থেকে যেন এই দেবদুর্লভ দৃপ্ত হতে বঞ্চিত না হই । যেখানে তোমার একজন ভক্তের হৃদয়ের প্রেমস্রোতে তোমার আনন্দধারা একদিন মিলেছিল আমরা সেই পুণ্যসংগমের তীরে নিভৃত বনচ্ছায়ায় আশ্রয় নিয়েছি, মিলনসংগীত এখনও সেখানকার সূর্যোদয়ে স্বর্যাস্তে সেখানকার নিশীথরাত্রের নিস্তব্ধতায় বেজে উঠছে । থাকতে থাকতে শুনতে শুনতে সেই সংগীতে আমরাও যেন কিছু স্বর মিলিয়ে যেতে পারি এই আশীৰ্বাদ করো। কেননা জগতে যত স্বর বাজে তার মধ্যে এই স্থরই সবচেয়ে গভীর সব চেয়ে মিষ্ট । মিলনের আনন্দে মামুষের আত্মার এই গান, ভক্তিবীণায় এই তোমার অঙ্গুলির স্পর্শ, এই সোনার তারের মূছন । ৭ই পৌষ, রাত্রি, ১৩১৬ চিরনবীনতা - প্রভাত এসে প্রতিদিনই একটি রহস্তকে উদঘাটিত করে দেয়, প্রতিদিনই সে একটি চিরন্তন কথা বলে অথচ প্রতিদিন মনে হয় সে-কথাটি নূতন । আমরা চিন্তা করতে করতে, কাজ করতে করতে, লড়াই করতে করতে প্রতিদিনই মনে করি, বহুকালের এই জগংটা ক্লাস্তিতে অবসর, ভাবনায় ভারাক্রান্ত এবং ধুলায় মলিন হয়ে পড়েছে। এমন সময় প্রত্যুষে প্রভাত এসে পূর্ব আকাশের প্রান্তে দাড়িয়ে স্থিতহাস্তে জাদুকরের মতো জগতের উপর থেকে অন্ধকারের ঢাকাটি আস্তে আস্তে খুলে দেয়। দেখি সমস্তই নবীন, যেন স্থজনকর্তা এই মুহূর্তেই জগৎকে প্রথম স্থষ্টি করলেন। এই যে প্রথমকালের এবং চিরকালের নবীনতা এ আর কিছুতেই শেষ হচ্ছে না, প্রভাত এই কথাই বলছে।