পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পুরী তুমি মোরে চাও ধৰে, অব্যক্তের অখ্যাত আবাসে আলো উঠে জ্বলে, অসাড়ের সাড়া জাগে, নিশ্চল তুষার গলে আসে নৃত্য-কলরোলে । নিঃশব্দচরণে উষা নিখিলের হপ্তির দুয়ারে দাড়ায় একাকী, রক্ত-অবগুণ্ঠনের আস্তরালে নাম ধরি কারে চলে যায় ভাকি । অমনি প্রভাত তার বীণা হাতে বহিরিয়া আসে, শূন্ত ভরে গানে, ঐশ্বৰ্ষ ছড়ায়ে দেয় মুক্তহস্তে আকাশে আকাশে, ক্লাস্তি নাহি জানে ॥ কোন জ্যোতির্ময়ী হোথা অমরাবতীর বাতায়নে রচিতেছে গান আলোকের বর্ণে বর্ণে ; নির্নিমেষ উদ্দীপ্ত নয়নে . করিছে আহবান । তাই তো চtঞ্চল্য জাগে মাটির গভীর অন্ধকারে ; রোমাঞ্চিত তুণে ধরণী ক্রন্দিয়া উঠে, প্রাণম্পন্দ ছুটে চারিধারে বিপিনে বিপিনে ॥ তাই তো গোপন ধন খুজে পায় অকিঞ্চন ধুলি নিরুদ্ধ ভাণ্ডারে । বর্ণে গন্ধে রূপে রসে আপনার দৈস্ত ষায় ভুলি পত্রপুষ্পভারে । দেবতার প্রার্থনায় কাপণ্যের বদ্ধ মুষ্টি খুলে, রিক্ততারে টুটি