পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী যুগে যুগে বারম্বার লিখে লিখে বারম্বার মুছে ফেল ; তাই দিকে দিকে সে ছিন্ন কথার চিহ্ন পুঞ্জ হয়ে থাকে ; অবশেষ একদিন জলজটা ভীষণ বৈশাখে

  • উন্মত্ত ধূলির ঘূর্ণিপাকে

সব দণও ফেলে অবহেলে, আত্মবিদ্রোহের অসন্তোষে । তার পরে আর বার বসে বসে নূতন আগ্রহে লেখ নুতন ভাষায় । যুগযুগান্তর চলে যায় ॥ কত শিল্পী, কত কবি তোমার সে লিপির লিখনে বসে গেছে একমনে । শিখিতে চাহিছে তব ভাষা, বুঝিতে চাহিছে তব অস্তরের আশা । তোমার মনের কথা অামারি মনের কথা টানে, r চাও মোর পানে । চকিত ইঙ্গিত তব, বসনপ্রাস্তের ভঙ্গীথানি অঙ্কিত করুক মোর বাণী । শরতে দিগস্ততলে ছলছলে তোমার যে অশ্রীর আভাস, আমার সংগীতে তারি পড়ুক নিঃশ্বাস । অকারণ চাঞ্চল্যের দোলা লেগে ক্ষণে ক্ষণে ওঠে জেগে কটিতটে যে কলকিঙ্কিণী, মোর ছন্দে দাও ঢেলে তারি রিনিরিনি, ওগো বিরহিণী ॥