পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্বিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ృలి; রবীন্দ্র-রচনাবলী অসম্ভব পূর্ণ হয়েছে বিচ্ছেদ, যবে ভাবিহু মনে, একা একা কোথা চলিতেছিলাম নিষ্কারণে। শ্রাবণের মেঘ কালো হয়ে নামে বনের শিরে, খর বিদ্যুৎ রাতের বক্ষ দিতেছে চিরে, দূর হতে শুনি বারুণী নদীর তরল রব— মন শুধু বলে, অসম্ভব এ অসম্ভব। এমনি রাত্রে কতবার, মোর বাহুতে মাথা, শুনেছিল সে যে কবির ছন্দে কাজরি-গাথা । রিমিঝিমি ঘন বর্ষণে বন রোমাঞ্চিত, দেহে আর মনে এক হয়ে গেছে যে-বাঞ্ছিত এল সেই রাতি বহি শ্রাবণের সে-বৈভব— মন শুধু বলে, অসম্ভব এ অসম্ভব। দূরে চলে যাই নিবিড় রাতের অন্ধকারে, আকাশের মুর বাজিছে শিরায় বৃষ্টিধারে । যুখীবন হতে বাতাসেতে আসে মৃধার স্বাদ, বেণীবাধনের মালায় পেতেম যে-সংবাদ এই তো জেগেছে নবমালতীর সে সৌরভ— মন শুধু বলে, অসম্ভব এ অসম্ভব। ভাবনার ভুলে কোথা চলে যাই অন্তমনে পথসংকেত কত জানায়েছে যে-বাতায়নে । শুনিতে পেলেম সেতারে বাজিছে স্বরের দান অশ্রজলের আভাসে জড়িত আমারি গান । কবিরে ত্যজিয়া রেখেছ কবির এ গৌরব— মন শুধু বলে, অসম্ভব এ অসম্ভব।