পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী তার পরদিনে,— আবার রুধিল দ্বার শয়ন-মন্দিরে । পরিল মুক্তার হার, ভালে সিন্দুরের টিপ, নয়নে কাজল, রক্তগম্বর পট্টবাস, সোনার আঁচল । শুধাইল দর্পণেরে— কহ সত্য করি ধরাতলে সব চেয়ে কে আঁজি স্বন্দরী । উজ্জল কনক-পটে ফুটিয়া উঠিল সেই হাসিমাখা মুখ । হিংসায় লুটিল রানী শয্যার উপরে । কহিল বঁশদিয়া— বনে পাঠালেম তীরে কঠিন বাধিয়া, এখনো সে মরিল না সতিনের মেয়ে, ধরণতলে রূপসী সে সবাকার চেয়ে ! তার পরদিনে,— আবার সাজিল সুখে নব অলংকারে ; বিরচিল হাসিমুখে কবরী নূতন ছাদে বাকাইয়া গ্রীবা, পরিল যতন করি নবরৌদ্রবিভা নব পীতবাস । দর্পণ সম্মুখে ধরে শুধাইল মন্ত্র পড়ি – সত্য কহ মোরে ধরামাঝে সব চেয়ে কে আজি রূপসী । সেই হাসি সেই মুখ উঠিল বিকশি মোহন মুকুরে । রানী কহিল জলিয়া— বিষফল খাওয়ালেম তাহারে ছলিয়া, তবুও সে মরিল না সতিনের মেয়ে, ধরাতলে রূপসী সে সকলের চেয়ে ! তার পরদিনে রানী কনক-রতনে খচিত করিল তন্থ অনেক যতনে ।