পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪৮৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চোখের বালি 8や2 কাব্যে পড়িয়াছিল, আজ বিনোদিনীকে দেখিয়া সে তাহা যতই অনুভব করিতে লাগিল, ততই মুখমিশ্রিত দুঃখের স্বতীব্র আলোড়নে তাহার হৃদয় একান্ত মথিত হইয়া উঠিল । বিনোদিনী ক্ষণকাল স্থির থাকিয়া মহেন্দ্রকে জিজ্ঞাসা করিল, “তুমি কি চা খাইয়া আসিয়াছ ।” মহেন্দ্ৰ কহিল, “না-হয় খাইয়া আসিয়াছি, তাই বলিয়া স্বহস্তে আর-এক পেয়ালা দিতে কৃপণতা করিয়ো না— ‘প্যাল মুঝ ভর দে রে’ ।” বিনোদিনী বোধ হয় ইচ্ছা করিয়া নিতান্ত নিষ্ঠুরভাবে মহেক্সের এই উচ্ছ্বাসে হঠাৎ আঘাত দিল— কহিল, “বিহারী-ঠাকুরপে এখন কোথায় আছেন খবর জান ?” মহেন্দ্র নিমেষের মধ্যে বিবর্ণ হইয়া কহিল, “সে তো এখন কলিকাতায় নাই ।” বিনোদিনী । তাহার ঠিকানা কী । মহেন্দ্র । সে তো কাহাকেও বলিতে চাহে না । বিনোদিনী । সন্ধান করিয়া কি খবর লওয়া যায় না । মহেন্দ্র । আমার তো তেমন জরুরি দরকার কিছু দেখি না। বিনোদিনী । দরকারই কি সব ৷ আশৈশব বন্ধুত্ব কি কিছুই নয় । মহেন্দ্র । বিহারী আমার আশৈশব বন্ধু বটে, কিন্তু তোমার সঙ্গে তাহার বন্ধুত্ব দু-দিনের— তবু তাগিদটা তোমারই যেন অত্যস্ত বেশি বোধ হইতেছে। বিনোদিনী । তাহাই দেখিয়া তোমার লজ্জা পাওয়া উচিত। বন্ধুত্ব কেমন করিয়া করিতে হয়, তাহা তোমার আমন বন্ধুর কাছ হইতেও শিখিতে পারিলে না ? মহেন্দ্র । সেজন্য তত দুঃখিত নহি, কিন্তু ফাকি দিয়া স্ত্রীলোকের মন হরণ কেমন করিয়া করিতে হয়, সে বিদ্যা তাহার কাছে শিখিলে আজ কাজে লাগিতে পারিত । বিনোদিনী । সে বিদ্যা কেবল ইচ্ছা থাকিলেই শেখা যায় না, ক্ষমতা থাকা চাই । মহেন্দ্ৰ গুরুদেবের ঠিকানা যদি তোমার জানা থাকে তো বলিয়া দাও, এ-বয়সে র্তাহার কাছে একবার মন্ত্ৰ লইয়া আসি, তাহার পরে ক্ষমতার পরীক্ষা হুইবে । বিনোদিনী । বন্ধুর ঠিকানা যদি বাহির করিতে না পার, তবে প্রেমের কথা আমার কাছে উচ্চারণ করিয়ো না। বিহারী-ঠাকুরপোর সঙ্গে তুমি যেরূপ ব্যবহার করিয়াছ, তোমাকে কে বিশ্বাস করিতে পারে । মহেন্দ্র। আমাকে যদি সম্পূর্ণ বিশ্বাস না করিতে, তবে জামাকে এত অপমান