পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী চাদপাল ও গোবিন্দমাণিক্যের প্রবেশ চাদপাল । মহারাজ, সাবধানে থেকে । চারি দিকে চক্ষুকৰ্ণ পেতে আছি, রাজ-ইষ্টানিষ্ট কিছু না এড়ায় মোর কাছে । মহারাজ, তব প্রাণহত্যা তরে গুপ্ত আলোচনা স্বকৰ্ণে শুনেছি । গোবিন্দমাণিক্য । প্রাণহত্যা ! কে করিবে ? চাদপাল । বলিতে সংকোচ মানি । ভয় হয় পাছে সত্যকার ছুরি চেয়ে নিষ্ঠুর সংবাদ অধিক আঘাত করে রাজার হৃদয়ে । গোবিন্দমাণিক্য । অসংকোচে বলে যাও । রাজার হৃদয় সতত প্রস্তুত থাকে আঘাত সহিতে । কে করেছে হেন পরামর্শ ? চাদপাল । যুবরাজ নক্ষত্র রায় । r গোবিন্দমাণিক্য । নক্ষত্ৰ ? চাদপাল । স্বকৰ্ণে শুনেছি মহারাজ, রঘুপতি যুবরাজে মিলে গোপনে মন্দিরে বসে স্থির হয়ে গেছে সব কথা । গোবিন্দমাণিক্য । দুই দণ্ডে স্থির হয়ে গেল অাজন্মের বন্ধন টুটিতে ! হায় বিধি । চাদপাল । দেবতার কাছে তব রক্ত এনে দেবে গোবিন্দমাণিক্য। দেবতার কাছে । তবে আর নক্ষত্রের নাই দোষ । জানিয়াছি, দেবতার নামে মহন্তত্ব হারায় মাছুষ । ভয় নাই যাও তুমি কাজে । সাবধানে রব আমি । [ চাদপালের প্রস্থান রক্ত নহে, ফুল আনিয়াছি, মহাদেৰী, -