পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনবাণী তেজ স্বষ্টির প্রথম বাণী তুমি, হে আলোক ; এ নব তরুতে তব শুভদৃষ্টি হ’ক । একদা প্রচুর পুষ্পে হবে সার্থকতা উহার প্রচ্ছন্ন প্রাণে রাখো সেই কথা । স্নিগ্ধ পল্লবের তলে তব তেজ ভরি’ হ’ক তব জয়ধ্বনি শতবর্ষ ধরি। মরুৎ হে পবন কর নাই গৌণ, আষাঢ়ে বেজেছে তব বংশী । তাপিত নিকুঞ্জের মৌন নিশ্বাসে দিলে তুমি ধ্বংসি । এ তরু খেলিবে তব সঙ্গে, সংগীত দিয়ে এরে ভিক্ষণ । দিয়ো তব ছন্দের রঙ্গে পল্লবহিল্লোল শিক্ষণ । ব্যোম আকাশ, তোমার সহাস উদার দৃষ্টি মাটির গভীরে জাগায় রূপের স্বষ্টি । তব আহবানে এই তো শু্যামলমূর্তি আলোক-অমৃতে খুজিছে প্রাণের পুতি । দিয়েছ সাহস, তাই তব নীলবর্ণে বর্ণ মিলায় আপন হরিৎপর্ণে। তরুতরুণেরে করুণায় করো ধন্ত, দেবতার স্নেহ পায় যেন এই বস্ত । > 2○