পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२8२ রবীন্দ্র-রচনাবলী বিস্ময় আবার জাগি আমি । রাত্রি হল ক্ষয় । পাপড়ি মেলিল বিশ্ব । এই তো বিস্ময় অন্তহীন । ডুবে গেছে কত মহাদেশ, নিবে গেছে কত তারা, হয়েছে নিঃশেষ কত যুগ যুগান্তর। বিশ্বজয়ী বীর নিজেরে বিলুপ্ত করি শুধু কাহিনীর বাক্যপ্রাস্তে আছে ছায়াপ্রায় । কত জাতি কীতিস্তম্ভ রক্তপঙ্কে তুলেছিল গাথি মিটাতে ধূলির মহাক্ষধা । সে-বিরাট ধ্বংসধারা-মাঝে আজি আমার ললাট পেল অরুণের টিকা আরো একদিন নিদ্রাশেষে, এই তো বিস্ময় অন্তহীন । আজ আমি নিখিলের জ্যোতিষ্কসভাতে রয়েছি দাড়ায়ে ৷ আছি হিমাদ্রির সাথে আছি সপ্তর্ষির সাথে, আছি যেথা সমুদ্রের তরঙ্গে ভঙ্গিয় উঠে উন্মত্ত রুদ্রের অট্টহাস্তে নাট্যলীলা । এ বনস্পতির বন্ধলে স্বাক্ষর আছে বহু শতাব্দীর, কত রাজমুকুটেরে দেখিল খসিতে। তারি ছায়াতলে আমি পেয়েছি বসিতে আরো একদিন— জানি এ দিনের মাঝে কালের অদৃশু চক্র শব্দহীন বাজে। ১২ আষাঢ় ১৩৩৯ কোণার্ক [ শান্তিনিকেতন ]