পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२१७ রবীন্দ্র-রচনাবলী দুইজনেতে বাধমু বাসা পাথর দিয়ে গেথে, দুইজনেতে বসন্তু সেথায় একটি আসন পেতে । বিরহরাত ঘনিয়ে এল কোন বরষের থেকে, কালের রথের ধুলা উড়ে দিল আসন ঢেকে। বিস্মরণের ভাট বেয়ে কবে এলেম ফিরে ক্লান্তহীতে রিক্তমনে এক আপন তীরে । বঙ্গসাগর বহুবরষ বলে নি মোর কানে সে যে কন্তু সেই মিলনের গোপন কথা জানে। জাহ্নবীও আমার কাছে গাইল না সেই গান সুদূর পারের কোথায় যে তার আছে নাড়ীর টান। এবার আবার ডাক শুনেছি, হৃদয় আমার নাচে, হাজার বছর পার হয়ে আজ আসি তোমার কাছে । মুখের পানে চেয়ে তোমার আবার পড়ে মনে আরেক দিনের প্রথম দেখা তোমার স্যামল বনে । হয়েছিল রাথির্বাধন সেদিন শুভ প্রাতে, সেই রাথি যে আজো দেখি তোমার দখিন হাতে । এই সে-পথে হয়েছিল মোদের যাওয়া-আসা আজো সেথায় ছড়িয়ে আছে আমার ছিন্ন ভাষা। সে চিহ্ন আজ বেয়ে বেয়ে এলেম শুভক্ষণে সেই সেদিনের প্রদীপজালা প্রাণের নিকেতনে। আমি তোমায় চিনেছি আজ, তুমি আমায় চেনে, নূতনপাওয়া পুরানোকে আপন বলে জেনে । ৪ ভার ১৩৩৭ [ वाफेडिग्नां] यवईौर्ण