পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গ্রন্থপরিচয় [ রচনাবলীর বর্তমান খণ্ডে মুদ্রিত গ্রন্থগুলির প্রথম প্রকাশের তারিখ ও গ্রন্থসংক্রান্ত অন্যান্য জ্ঞাতব্য তথ্য গ্রন্থপরিচয়ে সংকলিত হইল। এই খণ্ডে মুদ্রিত কোনো কোনো রচনা সম্বন্ধে কবির নিজের মন্তব্যও এই বিভাগে মুদ্রিত হইল । পুর্ণতর তথ্যসংগ্ৰহ সর্বশেষ খণ্ডে একটি পঞ্জীতে প্রকাশিত হইবে । ] মহুয়া ১৩৩৬ সালের আশ্বিন মাসে প্রকাশিত হয় । বিশ্বভারতী রবীন্দ্রভবনে রক্ষিত পাণ্ডুলিপির সাহায্যে মহুয়ার বর্তমান সংস্করণে অনেক কবিতার রচনাস্থান নির্দিষ্ট হইল, এবং রচনাতারিখ ও পাঠ পরিবর্তিত ও সংশোধিত হইল । নিঝরিণী, শুকতারা, অচেনা, পথের বঁাধন, বাসরঘর, বিদায়, প্রণতি, নৈবেদ্য, অশ্রু, অন্তৰ্ধান— এই দশটি কবিতা শেষের কবিতা • উপন্যাসের জন্য লিখিত হইলেও ‘ভাবানুষঙ্গবশত মহুয়াতেও মুদ্রিত হইয়াছে’। রচনাবলী-সংস্করণে মহুয়ার সেই রূপ অপরিবর্তিত রাখা হইল । * মহুয়ার প্রথম সংস্করণের পাঠপরিচয়ে পাদটীকায় জানানো হইয়াছে যে, ‘বিচ্ছেদ ও ‘বিরহ’ শেষের কবিতার জন্য লিখিত হইলেও ওই উপন্যাসে ব্যবহৃত হয় নাই। পাণ্ডুলিপিতে প্রাপ্ত কয়েকটি কবিতার মূল বা স্বতন্ত্র পাঠ নিম্নে মুদ্রিত হইল : ৩ শুধায়ো না মোর গান কারে করেছিমু দান পথধুলা-পরে আছে তারি তরে যার কাছে পাবে মান । ২ যে সেই ধুলার ফুলে হার গেঁথে লয় তুলে,— হেলার সে-ধন হয়-যে ভূষণ তাহারি মাথার চুলে।

  • जड़ेबी : ब्ररोौटा-ब्रफ़नांबलौ शशंभ १७ ।।