পাতা:রাজমোহনের স্ত্রী.djvu/৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ԳԵ- রাজমোহনের স্ত্রী আমি জানি, বড় ঠাকরুণ তোকে ভালবাসেন । তুষ্ট গেলে তিনি খুশিষ্ট হবেন । চপ করে আছিস কেন দিদি, কথা বল । মাতঙ্গিনী যেন বিরক্ত হইয়া ভ্ৰকুঞ্চিত করিয়াছিল, কিন্তু মুখরা কনক সে দিকে লক্ষ্য না করিয়াই বলিতে লাগিল, হ্যা হ্যা, ও যাবে । তুমি মা ও সুকীর মা, চানটা সেরে এস, তোমার সঙ্গে এপনষ্ট ও যাক । ঘাও, দেরি ক’রো না । সুকীর মা তার বিলম্ব না করিয়া স্নান করিতে গেল । মাতঙ্গিনী বলিল, এত ও আমার কপালে ছিল, কনক । কনক উত্তেজিত হঠয়া জোরের সঙ্গে বলিল, ’ন’ ব’লে না দিদি, এতে মত না দিলে তুমি আমার রক্ত পাবে । এপন দাও, সন্ধ্যে বেলায় আমি তোমার সঙ্গে দেথা করব । আর কথা ব’লে না | কনক আর উত্তরের প্রতীক্ষা না করিয়া তাড়াতাড়ি তাহার কলসী তুলিয়া লইল এব দ্রুতপদে জলের পারে গিয়া সুকীর মায়ের সঙ্গে স্নান করিতে নামিল । ত্রয়োদশ পরিচ্ছেদ আশ্রয়দাত্রী মথুর ঘোষের বাসভবন পল্লীগ্রামের সমৃদ্ধির সহিত পরিচ্ছন্নতার অভাবের একটি চমৎকার দৃষ্টান্ত । বহুদূরবিস্তৃত ধানের ক্ষেতের ওপার হইতে বৃক্ষশাখাপত্রের অবকাশপথ দিয়া বাড়িটির ছাদের আলিসা ও কালো প্রাচীর নজরে পড়ে । কাছে আসিলে দেখা যায় যে স্থানে স্থানে প্রাচীন চুন-বালির সম্লান্ত বুনিয়াদ জরাজীর্ণ পুরাতন ইষ্টক-ভিত্তি ত্যাগ করিয়া খসিয়া পড়িবার