পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/২৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अब्र९-नांश्छिा-नर6यह স্বলোচনা মনে মনে যেন শক্ত সাধাত পাইয়া বসিয়া পড়িলেন। খানিক পরে নিশ্বাস ফেলিলেন, বলিলেন, জানিনে কেন মানুষের এসব ছৰ্ব্বদ্ধি হয়। গুণেন্দ্ৰ হাসিয়া বলিল, দুৰ্ব্ব দ্বির কথা অন্য সময়ও হতে পারবে মা, এখন রান্নাঘরের দিকে চল । wo পথিক যেমন গাছতলায় রাধিয়া খাইয়া হাড়িটা ফেলিয়া দিয়া চলিয়া যায় এবং তখন চাহিয়া দেখে ন হাড়িটা ভাঙ্গিল কি বাচিল, সংসারে শতকরা নব্বই জন লোক ঠিক এমনি করিয়াই সরস্বতীর কাছ হইতে কাজ আদায় করিয়া মা-লক্ষ্মীর রাজপথের ধারে নির্মমভাবে তাঁহাকে ছুড়িয়া.ফেলিয়া দেয়- একবার ফিরিয়াও দেখে না তিনি ভাঙিলেন, কি বঁচিলেন। গুণেন্দ্র সেইরূপ করে নাই। সে চিরদিন যেভাবে শ্রদ্ধা করিয়া সেবা করিয়া আসিয়াছিল, উকীল হইয়াও ঠিক তেমনি করিয়াই সরস্বতীর সেবা করিতে লাগিল। তাহার পড়িবার ঘর পুস্তকে ভরিয়া উঠিয়াছিল ; সেই ঘরের মধ্যে হেমনলিনী ভারি আশ্রয় পাইল । গুণেন্দ্র গুছান প্রকৃতির লোক ছিল ন। বলিয়া তাহার যে পুস্তক একবার আলমারির বাহিরে অাসিত তাহ শীঘ্র আর ভিতরে প্রবেশ করিতে পারিত না । টেবিল, চেয়ার, অবশেষে নীচের গালিচার উপর পড়িয়া সুদীর্ঘকাল পরে যদি কোনগতিতে নন্দার সাহায্যে ভিতরে প্রবেশ করিত, আবগুক না হইলে আর বাহির হইত না—এমনি মিশিয়া যাইত । একটা পুস্তকের তালিকাও তাহার ছিল বটে, কিন্তু সেটাকে কাজে লাগাইবার কিছু মাত্র উপায় ছিল না। হেম এই বিশৃঙ্খলা দুই-চারিদিনের মধ্যেই ঠিক করিয়া ফেলিল একদিন একটা আলমারি খালি করিয়া সমস্ত বই নীচে নামাইয়াছে, এমন সময়ে গুণেন্দ্র ঘরে ঢুকিল । তাহাকে দেখিয়া হেম বলিল, গুণীদা, এই বইগুলো ঐ আলমারিতে, আর ওই বইগুলো এই আলমারিতে রাখলে ভারি স্থবিধে হয় । গুণেন্ত্ৰ হাসিয়া বলিল, কি স্থবিধে হয় ? হেম বলিল, বাঃ, স্থবিধে হবে না ? দেখচ না এই বইগুলো এইটাতে রাখলে কেমন-- গুণেন্দ্র গম্ভীর হইয়া বলিল, দেখতে পাচ্ছি বটে, খুব স্ববিধে হৰে। হেম একটা চৌকির উপর বসিয়া পড়িয়া বলিল, যাও—করব না, তোমার ভাল করতে নেই। ኳፃ•