পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পথের দাবী রাগ করে চলে গেলেন নাকি ? রাগ করে ? অপূৰ্ব্ব একটু ভাবিয়া কহিল, কি জানি হতেও পারে। তাকে বোঝাই তো যায় না,— নইলে তোর উপর এত যত্ন, একবার খবর নিতেও ত এলেন না তুই ভাল হলি কিনা! এই কথা তেওয়ারীর ভাল লাগিল না। বলিল, তার নিজেরই হয়ত অস্থখবিমূখ কিছু করেচে। নিজের অস্থখ-বিমুখ! অপূৰ্ব্ব চমকিয়া গেল। তাহার সম্বন্ধে অনেকদিন অনেক কথাই • মনে হইয়াছে, কিন্তু কোনদিন এ আশঙ্কা মনেও উদয় হয় নাই । যাবার সময় সে হয়ত রাগ করিয়াই গিয়াছে এবং এই রাগ করা লইয়াই মন তাহার যত কিছু কারণ খুজিয়া ফিরিয়াছে। কিন্তু অন্ত সম্ভাবনাও যে থাকিতে পারে এদিক পানে ক্ষুব্ধ চিত্ত তাহার দৃষ্টিপাই করে নাই। হঠাৎ অমুখের কথায় এ লইয়া যত আলোচনা সে রাত্রে হইয়াছিল সমস্ত এক নিমিষে মনে পড়িয়া অপূৰ্ব্ব বসন্ত ছাড়া আর কিছুই ভাবিতে পারিল না। তাহার নূতন বাসায় দেখিবার কেহ নাই, হয়ত হাসপাতালে লইয়া গেছে, হয়ত এতদিনে বাচিয়াও নাই, মনে মনে সে একেবারে অস্থির হইয়া উঠিল। একটা চেয়ারে বসিয়া আফিসের কলার নেকটাই ওয়েস্টকোট খুলিতে খুলিতে তাহাঙ্গের আলাপ শুরু হইয়াছিল, হাতের কাজ তাহার সেইখানেই বন্ধ হইয়া গেল, মুখে তাহার শব্দ রহিল না, সেই চেয়ারে মাঠের পুতুলের মত বসিয়া এই এক প্রকারের অপরিচিত, অস্পষ্ট অনুভূতি যেন তাহাকে আচ্ছন্ন করিয়া রাখিল যে সংসারে আর তাহার কোন কাজ করিবার নাই । কিছুক্ষণ অবধি কেহই কথা কহিল না। এমনি একভাবে মিনিট কুড়ি-পঁচিশ কাটিয়া গেলেও যখন অপূৰ্ব্ব নড়িবার চেষ্টা পৰ্য্যম্ভ করিল না, তখন তেওয়ারী মনে মনে শুধু আশ্চৰ্য্য নয়, উদ্বিগ্ন হইল। আস্তে আস্তে কহিল, ছোটবাবু, বাড়িওয়ালার লোক এসেছিল ; যদি তেতালার ঘরটাই নেওয়া হয় ত, এই মাসের মধ্যেই বদলানো চাই বলে গেল। আমার ভাবনা হয় পাছে কেউ আবার এলে পড়ে । অপূৰ্ব্ব মুখ তুলিয়া বলিল, কে আর আসচে। তেওয়ারী কহিল, আজ মায়ের একখানা পোস্টকার্ড পেয়েচি। দরওয়ানকে দিয়ে তিনি লিখিয়েচেন । কি লিখেচেন ? আমি ভাল হয়েচি বলে অনেক আহ্লাদ করেচেন। দরওয়ানের ভাই ছুটি yచి