পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/১৬৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S २२ শিখ-ইতিহাস সম্প্রদায় , আল সিং এবং তাহার পরিবারের অন্যান্য সর্দারদিগের একজন পূর্বপুরুষের নামানুসারে এই সম্প্রদায় 'ফুলকিয়া সম্প্রদায় নামে অভিহিত ॥৪০ এই সমূদায় মিছিলের মধ্যে ফুলকিয়া ব্যতীত অবশিষ্ট সকলগুলিই শতদ্রুর উত্তর পঞ্জাব প্রদেশে বিশেষ খ্যাতি-প্রতিপত্তি লাভ করিয়াছিল। তাহারা সকলেই মঞ্চ’ সিং নামে পরিচিত। লাহোরের চতুঃপার্শ্ববর্তী বিশাল ভূ-খণ্ড মাঞ্চ নামে অভিতিত বলিয়া দেশের নামানুসারে তাহারা ঐ নাম প্রাপ্ত হইয়াছে। মাঞ্চ নামে পরিচিত হইয়া ‘মালোয়া’ সিং দিগের সহিত তাহারা আপনাদের স্বাতন্ত্র্য রক্ষা করিয়াছে। সারহিন্দ এবং শীর্ষার মধ্যবর্তী বিস্তীর্ণ প্রদেশসমূহ সাধারণতঃ ‘মালোয়া’ নামে অভিহিত, এবং তত্ৰত্য অধিবাসিগণ ‘মালোয়া’ সিং নামে পরিচিত। মাঞ্চয় প্রথমে 'ফৈজুলাপুরিয়া', ‘আল্লহু ওয়ালিয়া’ এবং “রামগড়িয়া সম্প্রদায়ের অভু্যখান হয় ; কিন্তু তাহাদের সে প্রাধান্ত অধিককাল স্থায়ী হয় নাই। এই সময় ‘ভাঙ্গ’ সম্প্রদায় প্রাধান্ত স্থাপন করে, এবং কিছুকাল তাঁহাদের ক্ষমতাই অক্ষুণ্ণ থাকে। অতঃপর ফৈজুলাপুরিয়াদিগের ‘কণিয়' নামক একটি শাখা সম্প্রদায়ের অভু্যখানে, ‘ভাঙ্গ’ সম্প্রদায়ের প্রাধান্য কিয়ুৎপরিমাণে ধ্বংস হয়। অত:পর রণজিৎ সিংহের অভু্যখানে এবং ‘স্বকারচাকিয়া সম্প্রদায়ের প্রভূত্ত্ব প্রতিষ্ঠায়, ‘কাণিয়া দিগের প্রাধান্তই নষ্ট হয়। মালবের ফুলকিয়া সম্প্রদায়, পাতিয়ালা -শাখা-সম্প্রদায়ের প্রাধান্য স্বীকার করিত। আল সিংহকে উপাধি ভূষণে ভূষিত করিয়া, আমেদ সাও পাতিয়ালার আধিপত্য ও শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিপন্ন করিয়া গিয়াছেন । তবে সম্প্রদায়সমষ্টির শ্রেষ্ঠত্ব সম্বন্ধে বলিতে গেলে, একমাত্র ‘ভাঙ্গ’ সম্প্রদায়ের নিকটই ‘পাতিয়াল’ শাখা সম্প্রদায় অপেক্ষাকৃত নিকৃষ্ট ছিল। ‘নিশানিয়া’ এবং ‘সাহিদ’ সম্প্রদায় কদাচিৎ প্রকৃত ‘মিছিল’ গঠনে সমর্থ হইত। তাহাদের বিশেষ বিশেষ শাখাগুলি স্বতন্ত্র থাকিত, এবং বিশেষ কারণ বশতঃ সকলেই তাহাদিগকে সম্মান করিত ॥৪১ 'নাকিয়া' সম্প্রদায় কখনও খ্যাতি প্রতিপত্তি এবং প্রাধান্য লাভে সমর্থ হয় নাই ; ‘ডালিওয়াল’ s• ! #ltạR x!Uã (“##fàR fāt,' ss ?!ài #5Itfừ I - Captain Murray's Runject Singh, p. 29 & c: ) সর্বপ্রথমেই শিখদিগের এই "মিছিল'-প্রথা বর্ণনা করিয়াছেন। বিশেষতঃ ফরষ্টার, ব্রাউন, অথবা ম্যালকম কেহই এই ‘মিছিল গঠনের বিষয় অথবা এই শব্দের উল্লেখ করেন নাই। স্তার ডেভিড অক্টারলোনি প্রথম প্রথম মনে করিয়াছিলেন,–‘মিছিল' শব্দে জাতি ও বংশ বুঝায় ; ইহাতে সন্ধিবদ্ধ দল বা সম্প্রদায় কিছুই নির্দিষ্ট হয় না। সুতরাং স্তার ডেভিড ডাহার footstoutfit of footfisson Sir D. Ochterloney to the Government of India. 30th December, 1809) ৪১। "ণিশানিয়া' এবং ‘সাহিদ' সম্প্রদায় স্বতন্ত্র দুইটি ‘মিছিল' সংগঠন করিয়াছিল,- কাপ্তেন মারে তাহা বলিীর সম্পূর্ণ অধিকারী নহেন। অপরাপর সম্প্রদায়ের মধ্যে বিতার পশ্চিমদিকে যাহার বাস করিত, তাহদেরই স্বতন্ত্র স্বতন্ত্র "মিছিল বা একতা-স্বত্রে-আবদ্ধ সম্প্রদায় বর্তমান ছিল। শতদ্রু নদীর নিকটবর্তী প্রদেশসমূহে তৎকালে সে সকল মতামত প্রচলিত ছিল, এই পুঙ্গানুপুঙ্গ বিবরণে কাপ্তেন মারে কেবল তাছাই বর্ণনা করিয়াছেন।