পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/২০৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিখদিগের স্বাধীন রাজ্য bఆ S সর্দারদিগের মধ্যে পরম্পর মনোমালিন্ত হেতু বিবাদ বিসংবাদ সংঘটিত হইলে, সে ক্ষেত্রেই বা ইংরাজ-গবরমেণ্ট কোন নীতি অবলম্বন করিবেন — সে সকল স্থলে তাহাদিগকে বাধী প্রদান করা কর্তব্য কিনা, ইতাদি বিষয় মীমাংসার জন্য ইংরাজ-গবর্ণমেণ্ট মনোযোগী হইলেন। বিভিন্ন জাতির বিভিন্নরূপ সামাজিক রীতি-নীতির সহিত হিন্দুদিগের উত্তরাধিকায়িত্ব-বিষয়ক প্রচলিত নিয়মসমূহের সামঞ্জস্ত বিধান করিতে, তাহার অশেষ পরিশ্রম করিলেন ;—ভিন্ন ভিন্ন জাতির সামাজিক প্রথা অনুসারে, উত্তরাধিকারিত্বের প্রাচীন বিধিসমূহ প্রবর্তিত করিতে চেষ্টা করিলেন। কৃষিজীবি শিখজাতি সহসী রাজ্যাধিকারি হওয়ায়, তাহাদের সম্বন্ধে হিন্দুশাস্ত্রানুসারে উত্তরাধিকারিত্বের নিয়ম নির্দেশ করিতে বিশেষ চেষ্টত হইলেন । উত্তরাধিকারী অবর্তমানে সম্পত্তির কিরূপ বন্দোবস্ত হওয়া উচিত—তাহ মীমাংসার জন্যও ইংরাজ-গবর্ণমেণ্ট বিশেষ চেষ্টা করিয়াছিলেন । র্তীহাদের মনে হইয়াছিল,—ব্রিটিশ জাতির নাগরিক (মিউনিসিপাল ) বিধি বিধানই শ্রেষ্ঠ ; আশ্রিত ব্যক্তিবর্গের রক্ষার জন্য র্তাহারা যে সাহায্য করিতে প্রস্তুত তদ্বারা তাহারা প্রত্যুপকারের আশা করিতে পারেন। র্তাহারা প্রতিপন্ন করিতে চেষ্টা করিলেন,—স্বগোত্রজ বা সপণ্ডিজ উত্তরাধিকারীদিগের স্বত্বাধিকার সীমাবদ্ধ ; সম্পত্তিতে র্তাহাদের জীবনসত্ত্ব । যাহার কোন রাজস্ব প্রদান করেন না, তাহাদিগের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত হইবার অধিকতর সম্ভাবনা। রাজস্ব আদায় না করাতে বুঝিতে হইবে যে, সম্পত্তিটিকে অতি সহজেই খাস করিয়া লওয়া যাইতে পারে। শিখ রাজ্যের এবং ইংরাজ রাজত্বের সাধারণ সীমা নির্দেশ করাও র্তাহীদের আর একটি অনিবার্য কর্তব্য মধ্যে পরিগণিত হইয়াছিল। এক্ষণে কোন কোন স্থলে তাহারা রণজিৎ সিংহের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করিলেন। তাহার এক্ষণে প্রতিপন্ন করিতে চাহিলেন—অধুনা কোন প্রধান নগর অধিকৃত হইলেই, তৎসংলগ্ন পারিপার্থিক গ্রাম ও জনপদ সমূহে নূতন স্বত্ব জন্মিবে ; সেই সমুদয় স্থান স্থানীয় শাসন-কর্তাদিগের রাজধানী মধ্যে পরিগণিত হইবে । অধীনস্থ ব্যক্তিগণ কতকগুলি পতিত জমি দখল করিয়া তাহাতে চাষ আবাদ করিতেছিল, সেই সকল জমি রাজার অধিকৃত বলিয়া ঘোষিত হইল। তাহার এক্ষণে সম্পূর্ণরূপে নাগরিক (মিউনিসিপাল ) শাসন-নীতি বিস্তার করিতে প্রবৃত্ত হইলেন। ব্রিটিশ প্রজাগণের নিকট হইতে অপহৃত সম্পত্তিসমূহের জন্ত তাহার ক্ষতি-পূরণের দাবী করিলেন ; অপরাধীদিগের আত্ম-সমর্পণের জন্য জিদ করিতে লাগিলেন। পূর্বতন বিচার-পদ্ধতি পুনরায় প্রচলিত হইবার ব্যবস্থা হইল ; পরম্পর আদান -প্রদানের নিয়ম প্রবর্তিত হওয়ায়ও সেই পূর্ব নীতি দূর হইল না। ব্রিটিশ প্রজার হৃত -সম্পত্তির ক্ষতিপূরণ দাবী করা সম্বন্ধে এবং অপরাধিগণের আত্মসমপর্ণ বিষয়ে পূর্বে বিচার-ব্যবস্থায় যে স্বেচ্ছাচার-নীতি অবলম্বিত হইত, এক্ষণে সেই সমস্ত বিষয়ের আদান -প্রদানের ব্যবস্থা প্রবর্তিত হওয়া সত্বেও পূর্বনীতি সম্পূর্ণরূপে বিদূরিত হইল না। প্ৰগলভ এবং অবিবেচক কর্মচারিগণের যথেচ্ছ কার্যকলাপে বৃহৎ সাম্রাজ্যের শাসন-নীতি এবং ' বিচার-ব্যবস্থা অনেক সময়ে নিন্দাভাজন এবং ভ্রমমূলক বলিয়া কথিত হয় -সাধারণে তৎপ্রতি পূর্বাপরই দোষারোপ করিয়া থাকে। সেই সকল কর্মচারী মনে করেন, অপরের >>