পাতা:শিখ-ইতিহাস.djvu/৪৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8Ե পরিশিষ্ট কতকগুলি কর্মচারীর বিরুদ্ধে দিল্লীর রেসিডেন্টের নিকট এক অভিযোগ উপস্থিত করেন । উত্তরে দেলওয়ার আলি খাকে জানান হয় যে, সীমানার কাসব, রাজা সাহেবু সিংহের আমৗলদারীর অস্তভূক্ত বলিয়া, এসম্বন্ধে বৃটিশ গবর্ণমেণ্ট কোনরূপে হস্তক্ষেপ করিতে পারে না ; সুতরাং দেলওয়ার আলি খ, রাজা সাহেব সিংহের নিকট যেন এই অভিযোগে উপস্থিত করেন। (২) কতকগুলি সম্পত্তির স্বত্ব-স্বামিত্ব লইয়া সর্দার ছুরত সিংহের সহিত দশোদা সিং এবং গুরুমুখ সিংহের ঘোরতর বিবাদ উপস্থিত হয়। পরে ১৮১১ খ্ৰীষ্টাব্দের ১২ই জুলাই তারিখে গবর্ণর-জেনারেলের এজেণ্ট, সার ডেভিড অক্টারলোনির নিকট দশোদা সিং এবং গুরমুখ সিং সেই সকল সম্পত্তির অংশের জন্য সর্দার ছুরত সিংহের নামে এক অভিযোগ উপস্থিত করেন। এই অভিযোগের উত্তরে, আজির পৃষ্ঠে লিখিত হয় –ছুরত সিংহের কোন ভ্রাতাই এই তিন বৎসরের মধ্যে কোন সম্পত্তির জন্য ছুরত সিংহের নামে অভিযোগ উপস্থিত করেন নাই; অথবা এ পর্যন্ত কোন অংশীদারের নাম পর্যন্ত উল্লেখ হয় নাই। ইতিপূর্বে সর্দারদিগকে যে “এতালানামা” প্রদান করা হইয়াছে, তাহাতে বিজ্ঞাপিত হইয়াছে যে, প্রত্যেক সর্দার শাস্তভাবে অবস্থান করিবেন এবং তাঁহাদের আপনাপন সম্পত্তিতে পূর্বে যে স্বত্বাধিকার ছিল, এখনও তাহাই পুনরপি বিদ্যমান থাকিবে । এই সকল কারণে র্তাহীদের আবেদন পত্র গৃহীত হইবে না। অভিযোগের এই উত্তরে যেন সাধারণকে একটি দৃষ্টান্ত দেখানোর চেষ্টা করা হইয়াছিল ; প্রত্যেক জমিদার এবং প্রজাবর্গের প্রাণেও এই আদর্শ অঙ্কিত করিবার চেষ্টা হইয়াছিল যে, প্রত্যেক ব্যক্তিই আপনাপন সামস্তের নিকট স্ববিচার প্রাপ্তির আশা করিবে ; কখনও কিয়ুৎপরিমাণেও সে অধীনতা ছিন্ন করিবার চেষ্টা করিবে না । এক্ষণে শতক্ৰ নদীর পূর্বতীরবর্তী অন্যান্য সর্দার এবং রাজন্তবর্গের কর্তব্য এই যে, তাহারা তাহদের পরস্পরের প্রজাবৰ্গকে এই বিষয় বুঝাইয়া দিয়া, তাহাদের বিশ্বাভাজন হইবেন। তাহাদের প্রজাবৰ্গ যেন বুঝিতে পারে যে, বৃটিশ গবর্ণমেণ্টের কর্মচারীর নিকট অভিযোগ উপস্থিত করায় কোন ফল নাই ; পরম্পরের সর্দারগণই স্ববিচারের কর্তা ; সর্দারগণের স্বাধীন ইচ্ছা এবং অভিপ্রায় অনুসারে প্রজাগণ সকলই যেন সমভাবে তাহাঁদের আজ্ঞা পালন করে । - - প্রথম ঘোষণাপত্র অনুসারে, অত্র প্রদেশস্থ সর্দারগণের অধিকৃত রাজ্যের সহিত কোনরূপািলংপ্রব রাখিতে, কিংবা র্তাহাদের অধিকার-স্বত্বে হস্তক্ষেপ করিতে, বৃটিশ গবর্ণমেন্ট ইচ্ছা করেন না। বৃটিশ গবর্ণমেণ্টের অভিপ্রায় নহে যে, তাহারা সর্দারগণের প্রতিকুলতাচরণ করেন। একমাত্র তাহাঙ্গের অবস্থার উন্নতি বিধান করে, এই ঘোষণাপত্র প্রচারে সর্বসাধারণকে জানান যাইতেছে যে, রাজা রণজিৎ সিংহের শেষ আক্রমণের সময়