পাতা:শ্রীধর্ম্মমঙ্গল - ঘনরাম চক্রবর্তী.pdf/১০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


&ীধৰ্ম্মমঙ্গল । নিদ্ৰাভঙ্গ হলো বাঘা আলস্য এড়াই। " অঙ্গমোড়া হুহুঙ্কায় ঘন ছাড়ে হাই ॥৮৭ চারিদিকে চঞ্চল লোচনে ফিৱে চায় । ¥ffግሾiዒ *j¥q• ቐፃ çቫ፴ Qሻጻ7 °ስiጃ ፬ ሦb” দেখি অভয়ার অসি অস্থির অন্তর । বিশেষ বুঝিল এই রঞ্জার কোঙর । ৮৯ দেখিল সংসার চিত্র ফলার উপর । বাম হলো বাসুলি বুঝিল বাঘবর ॥ ৯০ শান্তমূৰ্ত্তি দেখি সেনে শাৰ্দ্দলনন্দন। বলে পৃথিবীতে পরম পুরুষ এই জন ।। ৯১ সাধুসঙ্গ সাক্ষাতে সকল সিদ্ধি লাভ । ভাবিতে ভাবিতে ভুলে জাতির স্বভাব। ১২ লেজ কাণ সাটে সে পাকিল দিঠে চায়। লাউসেন বলে তোর প্রাণ নিব ঠায়। ১৩ শাৰ্দ্দল কহেন রাজা জল্লাদ-শিখর। বারে বারে মোরে কত বধেছে বিস্তর । ১৪ নব লক্ষ দল বলে গৌড়ের ভূপাল। প্ৰাণ লৈয়ে পলা’ল পশ্চাতে ফেলে ঢাল ॥ ৯৫ বুঝেছি। সবার বল এই খানে থাকি। সবাই বধেছে মাত্ৰ তুমি আছ বাকি ।। ৯৬ এত শুনি লাউসেন দৰ্প করি কয় । আমি নহি জল্লাদ-শিখর ভয়াশয় । ৯৭ গৌড়পতি নহি যে পল’য়ে যাব দূৱ । ত্ৰিলোকের নাথ ধৰ্ম্ম আমার ঠাকুর । ৯৮ তোরে ব’ধে ঘুঢ়াইব পথের কণ্টক । জগতে জাগিয়া যেন রয়ে যায়। সক । ৯৯ বাঘা বলে তোমার বুঝিব বীরপণা। এখন পলাও প্ৰাণ লইয়া আপন ॥ ১০ • বর দিতে এসে মোরে বুঝে গেল। রুদ্র। শশকের শক্তি নাই শুষিতে সমূদ্র । ১০১ আহায় যোগ’ল ভাল দেবী সর্বজয় । তোমার মায়ের দুঃখ দেখে লাগে দয়া।। ১০২ অনেক দিবস। আমি আছি। এই গড়ে । BBDBSDgB O KK D DD 00SDiLe ৮৭ । এড়াই-ত্যাগ করিয়া v>1 c夺円一如主 ১০ । বাসুক্তি-ভগবতী । বিরূপ ৷ ܕܘܕ ao fid-dres tv-rek তে মাৱ মায়ের দুঃখ শুন মন দিয়া । ভেয়ের বচনে যার জয়জয় হিয়া || ১ • 8 সন্ধ্য-বাদ দিল বারবৎসরের কালে । তোমা পুত্ৰ লাগি রঞ্চ ভর দিল শালে ॥ ১০৫ ऊअभिनै श्cम्न बाहब्जा उखिञ्ज छोवन । তবে ধৰ্ম্ম দিল তারে তোমা পুত্র ধন ॥ ১০৬ পাসরে সে সব দুঃখ তোমা মুখ চেয়ে। প্ৰাণ দিতে এলে কেন কার যুক্তি লয়ে। ১৭ স্কের নয়ন তুমি দরিদ্রের হীরা। ধৰ্ম্মপথে ছেড়ে দিনু, ঘর যারে ফিরা। ১ •৮ সেন বলে এ কথা কহিলি কোন লাজে । তোর যত ধৰ্ম্ম ভয় বুঝা গেছে। কাজে ॥ ১০১ হেদে ৱে পাপিষ্ঠ জন্তু দুরন্ত শাৰ্দ্দল। পোষ্য হয়ে পোষ্টাবরে করিলি নিম্মুল।। ১১০ পুত্রের অধিক তোমা পালিল ভূপতি। डiद्रहड्ट नों भूलि उiद्ध दश* हिऊ बांख् ि॥ ४४४ SLgO DBD BK DLDL DBDzYS स्ौदन शत्रूरिभ्र धार्द्रि धLभद्ध छ्भांद्र ॥ ७७२ অহঙ্কারে কে কোথা বেড়েছে সৰ্বকাল । কোথা গেল হিরণ্যকশিপু শিশুপাল ৷৷ ১১৩ একাথা গেল। কুরুবংশ কেশী কংসাসুর। অহঙ্কার অধিকে অধিক দৰ্পচুর । ১১৪ এইরূপে সকল দানব দুরাচার। মুনিগণে দিত দুঃখ বিবিধ প্রকার। ১১৫ স্থতে বধ করিয়া ঠাকুর বলরাম। তীর্থযাত্রা করিয়া চলিল অবিশ্ৰাম ৷৷ ১১৬ মুনি সব বিশিষ্ট বলিল বলরামে। বধিয়া দুরন্ত বন্তে রাখহ আশ্রমে। ১১৭ দুরন্ত অনন্ত তারে করিল সংহার। এইরূপে বেড়েছিল তার অহঙ্কার। ১১৮ "আজ আমি তোৱে বধি রাজধানে যাব। পথের নিশান তোর লেজ কাণ নিব ৷৷ ১১৯ শুনিতে শুনিতে শিহৰিল লেজ কাণ । কপালে কুটিল আঁখি কোপে কম্পমান। ১২০ অবনী কঁপায় কোপে আছাডিাঙ্গুড়ে।