পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/১৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মধ্য খণ্ড । Y8업 পাগলের গঙ্গাচর্ণ-যাত্রা ও লীলাখেলা। পয়ার । গঙ্গাচর্ণ যাব বলি পাগল ছুটিল । পৰ্থ মাঝে পাগলামি করিতে লাগিল । কতু হাটে কভু দৌড়ে কভু দেয় বোল। জয় হরি বলরে গৌরহরি বোল ॥ *s সঙ্গেতে ছিলেন ভক্ত মতুয়ার গণ । * পাটগাতী খেয়া পার হয়েন যখন ॥ কীৰ্ত্তিক বাটীতে থেকে জানিবারে পায় । হাটে যাই বলিয়। কাৰ্ত্তিক দ্রুত যায় ॥ গঙ্গাচর্ণ নিবাসী কাৰ্ত্তিকচন্দ্র নাম । মধ্যম গণেশচন্দ্র কনিষ্ঠ ছিদাম ॥ রামচন্দ্র বৈরাগীর পুত্র তিন জন । তিন সহোদর সবে হরি পরায়ণ ॥ পাগলের প্রিয় ভক্ত প্রধান কাৰ্ত্তিক । ঠিক যেন হনুমান নামেতে নৈষ্ঠিক ৷ গৃহকাৰ্য্য সমাপন যখনেতে হয়। নির্জনে বসিয়া হরিচাদ রূপ ধ্যায় ॥ ওঢ়ার্কাদি মন দিয়া পাগল ভাবিয়া । হৃদাসনে রাখে রূপ যুগল করিয়া ॥ পাগল যখন যtহ করেন যেখানে । কাৰ্ত্তিক অনেক কাৰ্য্য অন্তরেতে জানে ॥ আসিতেছে পাগল জানিয় তাহ মনে । হাটে যা’ব বলি সাধু চলিল তখনে ॥ পাগলেরে আনিবারে চলিলেন একা। পথিমধ্যে পাগলের সঙ্গে হৈল দেখা । পাগল ধরিল কাৰ্ত্তিকেরে জড়াইয়ে । কীৰ্ত্তিক পড়িল পদে দণ্ডবৎ হ’য়ে ॥ পাগল আনন্দ চিত ধরিল কাৰ্ত্তিকে । পুলকে পূর্ণিত হয়ে চুম্ব দিল মুখে ॥ চুম্ব দিয়া বলে হাটে করিয়াছ মেলা। আমার জন্তেতে এন একটী কমলা ॥ হাট কর গিয়া বাছা এস ত্বরা ক’রে। আমাকে পাইবা রাইচরণের ঘরে ॥ ভক্তগণ সঙ্গে ল’য়ে চলিল পাগল । রাইচরণের বাড়ী উঠিল সকল । চাদ মণ্ডলের পুত্র নামেতে বদন। তাহার ছেলের নাম ঐরাইচরণ ॥ বড়ই নিৰ্ম্মল চিত সাধু সুচরিত । হরিচাদ ভক্ত হরিনামে পুলকিত । গোলোক তাহার ঘরে লয়ে ভক্তগণ । রাত্রি ভরি করিলেন নাম সংকীৰ্ত্তন ॥ নামে মত্ত নিশী গত তাহা নাহি জানে । শেষ যামে ভোজনে বসিল সৰ্ব্বজনে ॥ ভোজনের শেষে ক্ষণে বিশ্রাম করিল। সবে যাও নিজালয় পাগল বলিল ॥ সকল বিদায় হ’ল বলি হরিবোল। কাৰ্ত্তিকের গৃহে এসে বসিল পাগল। দিনভরি ফিরি ঘুরি কত বাড়ী গেল : সন্ধ্যাকালে কাৰ্ত্তিকের গৃহেতে আসিল । কাৰ্ত্তিকের রমণীকে করি সম্বোধন। বলে মাগে। অদ্য শীঘ্র করহ রন্ধন ॥ অামার বিশেষ কাৰ্য্য আছে তোম। ল’য়ে। মাত পুত্রে হরিকথা কহিব বসিয়ে ॥ শুনিয়া অম্বিক। দেবী রন্ধন করিল। ক্ষণমধ্যে পাক অন্তে ভোজ সমাপিল ॥ পাগল কাৰ্ত্তিকে কহে এ কার্য্য করহ । পাক ঘরে আমার বিছানা করি দেহ ॥ আজ্ঞামতে কাৰ্ত্তিক করিল তখনেতে। সেই ঘরে তিনটি বসিল গোপনেতে ॥ পাগল কাৰ্ত্তিক আর কীৰ্ত্তিকের নারী। হরিকথা আলাপনে বঞ্চিল শব্বরী। হাসে র্কাদে গলা ধরি বাহু ধরাধরি । প্রেমে বাহ জ্ঞান হার বলে হরি হরি ॥ যামিনী এমন ভাবে পোহাইয়া গেল । ঝড় বৃষ্টি রাত্রি যোগে কিছু না জানিল । প্রভাতে বাহির হয়ে দেখিবারে প্রায় । অন্যান্য বাড়ীর ঘর ছিন্ন ভিন্ন প্রায় ॥ হরিনামে কি মাহাত্ম্য বাহ জ্ঞান নাই । রচিল তারকচন্দ্র হরি বল ভাই ॥ পাগল সুযাত্রা করি যান ওঢ়ার্কাদি। অপার সমুদ্র লীলা নাহিক অবধি ॥ শ্ৰীশ্ৰীহরিলীলামৃত সুধাধিক সুধা । পদ্ম মকরন্দ পানে খণ্ডে ভব ক্ষুধা ॥