পাতা:শ্রীশ্রীহরি লীলামৃত.djvu/৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ہمسہ சூ

  • てでヘ。

মধ্য খণ্ড । ہنb হারেরে পাগল। কেন কর পাগলাই । তোরে সারিবারে এল লক্ষ্মী কালা সাই ॥ . রুলাঘাতে করিব রে পাগলাই দুর। দেখিব কেমন তুই পাইলি ঠাকুর। মম বাক্য না রাখি করিস বাড়াবাড়ি। পাগলামি করিলে মারিব রুলের বাড়ী ৷ সারিবি কি না সারিবি বলরে এখন। শুনিবি কি না শুনিবি আমার বচন ॥ দৃকপাত তাতে নাহি করে হীরামন । বুকে বুকে করে হরি নাম সংকীৰ্ত্তন ॥ প্রেমোন্মত্ত হীরামন উঠিয়া দাড়ায় । ফকিরের পানে হীরে ফিরে ফিরে চায়। ফকির কহিছে তুই আয় হীরামন। বাহিরে আসিয়া বাছ লহরে আসন ॥ তাহা শুনি হীরামন উঠিয় দাড়ায় । , আসন পাতিয়া এসে বসিল তথায় ॥ ফকির তখন রুল হস্তেতে করিয়া । মাটীতে আঘাত করে হক আল্লা বলিয়া ; পুনঃ পুনঃ করে রুল মাটীতে আঘাত । হীরামন তাতে নাহি করে দৃষ্টিপাত ॥ ফকির বলেন তুই এসেছিস কেরে। হকের বাজারে মোরে পরিচয় দেরে । কথা শুনি হীরামন চাহে এক দৃষ্টে । ফকির রুলের বাড়ী মারে তার পৃষ্ঠে । তাহাতে ও হীরামন কিছুই না বলে। পুনশ্চ আঘাত করে বাহুসন্ধি স্থলে ॥ তাহাতেও হীরামন মৃদু মৃদু হাসে । = স্থির হয়ে থাকে সাধু আসনেতে বসে। ফকির সে হীরামনে ওঠ, ওঠ কয়। অমনি সে হীরামন উঠিয় দাড়ায় ॥ ফকির যখনে বলে বয় বয় বয়। হীরামন আসনে বসেন সে সময় ॥ ফকির বলেন তবে সবারে ডাকিয়া । দেখ সবে গেছে এর পাগল সারিয়া ॥ যাহা কহি তাহ করে ব্যাধিমুক্ত হ’ল। বিদায় করহ মোরে বিপদ ঘুচিল । ত শুনে চৈতন্যবালা ফকিরে কে কয় । অদ্য থাক কল্য মোর। করিব বিদায় ॥ ~\সংসারের কার্য্য হীরে করিবে যখন । তোমাকে বিদায় মোরা করিব তখন। . سید },...; . . ফকির বলিল হীরে দণ্ডবৎ কর । আসল ছাড়িয়া বাছা উঠে যারে ঘর ॥ পরদিন ফকিরেকে বলে সব বালা । পাগল সেরেছে নাকি দেখ লক্ষ্মীকালা ॥ . , হীরামনে ডাক দিয়া আনহ প্রত্যক্ষে । আরোগ্য হয়েছে কি না দেখহ পরীক্ষে। হীরামনে ডাক দিয়া তখনে আনিল । আসন উপরে হীরামন বার দিল ॥ ফকির বলেছে বাছা কহ শুনি কথা । হেট মুণ্ডে রহে সাধু নাহি তুলে মাথ ॥ মাথা নাহি তুলে সাধু শ্বাস ছাড়ে দীর্ঘ । সবে বলে কই হ’ল রোগের আরোগ্য ৷ রুষিয়া উঠিল তবে ফকির বর্বর । বড়সী পোড়ায়ে ধরে গ্রীবার উপর ॥ সারিয়া না সারিস্ করিস্ অপযশ । এরূপে যাতনা দেয় সপ্ত দিবস। - ফকিরেকে কহে সবে যদি নাহি পাের। তবে আiর কেন মিছে পরিশ্রম কর। ফকির এ কথা শুনি দড়ি পাকাইল । পিট মোড় দিয়া হীরামনকে বঁধিল ॥ দল কাটা বেকী অস্ত্র পোড়ায়ে আগুনে । গ্রীবার উপরে অয়ি ধরিল তখনে ॥ কিছু নাহি কহে হীরামন মৃদু হাসে । ফকির কহিছে ইহা সহে কি মানুষে ॥ ইহাকে সারিতে আমি হইলাম ত্যক্ত । সারা বড় কষ্ট হ’ল দৃষ্টি ঘড় শক্ত। ইহাকে যে ধ’রেছে করিব তীরে ধ্বংস । ...খাওয়াইতে হবে কাচ কচ্ছপের মাংস ॥ । চেষ্টা করি কাঠ। আন আর আন ঢা’লে। তারে খাওয়াইব এরে যে এসে ধরিল। আনিয়া কচ্ছপমাংস তাহাকে খাওয়ায় । হাত পেতে এনে মাংস গ্রাসে গ্রাসে খায় ॥ তবু হীরামন নাহি হ’য়েন সদৃভাব । ফকির বলেছে এযে বড় অসম্ভব ॥ পুন পৃষ্ঠ মোড়া দিয়া দুবাহু বাধিল । হস্তদ্বয় বাধি তার একত্র করিল। সূক্ষ্ম তত্ত্ব দিয়া তার বঁধিল যে কর । , দুই দুই আঙ্গুলী করিয়া একতর ॥ ওঝ বলে ছেড়ে যা’বি কি না যা’বি বোঝ ; . এত বলি অঙ্গুলির মধ্যে মারে গোজ ৷ , - i f ... ". . - १ d3.