পাতা:ষোল আনি (জলধর সেন).djvu/৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষোল-তমালি অপরাধ ? বনের হিংস্র পশুর হাতে যে কত লোক আহত হয় ; একে ও কি সেই পৰ্য্যায়ে ফেলা কৰ্ত্তব্য নয় ?” “ত হ’লে, তোমাদের নূতন আইন-অমুসারে এই কথা মেনে নিতে হচ্চে যে, কেহ যদি জোর করে কোন স্ত্রীলোকের সহিত অবৈধ অভিগমন করে, তা হলে সে স্ত্রীলোককে অসতী বলা যেতে পারে না ; তাকে অনায়াসে ঘরে তুলে নেওয়া যেতে পারে ; তার সঙ্গে,--এই তোমরা যেমন করছ, তেমনি আচার-ব্যবহার করা যেতে পারে ; তাতে সমাজের কোন মর্য্যাদার হানি হয় না। আচ্ছ, আমি তোমাকেই জিজ্ঞাসা করি বাপু ! স্ত্রীলোকের প্রতি এই প্রকার অত্যাচার এই প্রথম হোলো, না প্রায় অনেক সময়ই হয়ে থাকে ?” Q সিদ্ধেশ্বর বলিলেন “এই প্রথম কেন, খবরের কাগজে এ রকম অত্যাচারের কথা ত প্রায় সৰ্ব্বদাই পড়তে পাওয়া যায়।”

  • এখন বল ত, সেই সকল রমণী, যারা এই ভাবে অত্যাচারিত হয়েছে, তারা কোথায় স্থান পায় ? আমাদের এই বাঙ্গাল দেশের কোন স্থানের কোন সমাজে, অর্থাৎ কোন হিন্দু সমাজে, কোন , ব্রাহ্মণ বৈদ্য কায়স্থ সমাজে, সুধু তাই বলি কেন, জল আচরণীয় কোন শ্রেণীর মধ্যে কখন এমন স্ত্রীলোকের গ্রহণের কথা শুনেছ ?”

সিদ্ধেশ্বর একটু চুপ করিয়া থাকিয়া বলিলেন “আঙ্কে না, ত৷ শুনি নেই, কিন্তু শোনা উচিত ছিল।”

  • তা হ’লে বাপু, যা কখন শোন নাই, যা কোন সমাজে কখন

vፃ