পাতা:সাহিত্য-সাধক-চরিতমালা প্রথম খণ্ড.pdf/১২৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রামকমল ভট্টাচাৰ্য্য سيايي বিষ্ঠায় বাইশ তেইশ বৎসর বয়স পৰ্য্যস্ত ক্ষয় কবিয়া সেই নীরস সংস্কৃত দর্শন শাস্থে মনোনিবেশ করিতে পারে, ঈদৃশ শাস্ত্রাচুরাগী ব্যক্তি অস্থাপি এতদ্দেশে হয় নাই । তাহার প্রধান কারণ এই যে, ইংরেজীতে সহজ সহজ ভাষায় সকল বিষয় পড়িবার অভ্যাস হইলে কঠিন ভাষা বুঝিবার সামর্থ্য অনেক হাস হয়, স্ব স্তরাং ঘাহা বুঝিতে ক্লেশ বোধ হয়, তাহ অসার অকিঞ্চিংকর ও বৃথাব্যগঙ্গলময় বলিয়া অনাদর জন্মে, এইরূপে ইংরেজী অধ্যেভার দূর হইতে সংস্কৃত দর্শনশাসকে দণ্ডবং করিতে নিতান্তই বাধ্য হইবেন । রামকমলের পক্ষে সে সংকট দৈববশাৎ তাপনীত হইয়াছিল। শুনি আগে সংস্কৃত দর্শনশাস্থের প্রকৃত আস্বাদ গ্রহণ করিয়া, পরে ইংরেজী দর্শনের অধ্যয়নে প্রবৃত্ত হইয়াছিলেন । ভাষার লালিত্য • বিষয়ে সংস্কৃত ও ইংরেজী দর্শনেন যে স্বর্গমর্ত্য প্রভেদ, তদ্বারা উহার BBBBBS BB BBBBB BBBBBS SBBBBBBSBBBB ব্যাপকীভূত" প্রভৃতি কর্ণকুঠোর বর্বর পরিভাষা সমস্ত এক বার ধিনি গলাধঃকরণ করিয়াছিলেন, হিউমের স্বমধুঃ পঃ বিদ্যাস ৭ জুন ইস্টয়ার্ট মিলের উদার সরল ও পরিষ্কাল রচনার অন্ত শীলন করিবার সময় ঠfহার এক প্রকার নিরূপম আমোদ বোধ হইয়া থাকিবেক । এ কারণে তিনি অচিরাং ইংরেজী দর্শনের এরূপ মৰ্ম্মগ্রাহী ইষ্টয়াছিলেন যে, শেষাশেষি অগস্ট্‌ কঞ্জ টু ও মিলের সম্প্রদায়কে গুরুদেবের দ্যায় ভক্তি করিতেন । পূৰ্ব্বদেশীয় ও পশ্চিমদেশীয় এই উভয়বিধ দর্শন শাস্ত্র আর কখন এরূপ পরিপাটী রূপে একাধারে বৰ্ত্তে নাই, অতএব তাদৃশ লোকের চিন্তাশক্তি স্বারা পরিণতি প্রাপ্ত হইয়া দর্শনশাস্ত্র যে কিরূপ মূৰ্ত্তি ধারণ করে, লোকের এ কৌতুহল এখন কিছুকালের নিমিত্ত স্তম্ভিত রাপিতে হইল । সেই অমূল্য চমৎকার স্থযোগ রামকমলের চিতার উপরেই ভস্মসাৎ হইয়া গিয়াছে। ।