পাতা:১৯০৫ সালে বাংলা.pdf/৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


e o ) দেওয়া অপরাধে ভাস সাহেবের বিচারে এক মাসকাল কঠোর পরিশ্রম সহ কারাবাস করিবার জন্ত আদিষ্ট হন। ইহাদিগের দুইজনেরই নিমিত্ত অনুরাগনিদর্শন রজত পদক প্রেরিত হইয়াছে। এতদ্ভিন্ন শ্ৰীযুক্ত সাধু ও শ্ৰীযুক্ত সিধু এই লবণের মামলায় আসামী হন। বিচারে ইহাদিগের প্রত্যেকের পঞ্চাশ টাকা করিয়া অর্থদণ্ড হয় । জরিমানার টাকা দিতে না পারিলে উভয়ের চতুর্দশ দিবসের কঠোর শ্ৰীঘরবাস নিৰ্দ্ধারিত ছিল। উভয়েই এই অর্থদণ্ড প্রদানে অসমর্থ হওয়ায় কারাগৃহে অবরুদ্ধ হইয়াছিলেন। পরে স্থানীয় হিন্দু ভদ্রলোকেরা এ ব্যাপার অবগত হইয়া জরিমানার টাকা তুলিয়া দেন, তখন এই দুইজনের মুক্তি লাভ ঘটে । এই দুইজনকে “বন্দেমাতরম" অঙ্কিত রজত দোলক বা লকেট অনুরাগ নিদর্শন স্বরূপ প্রদান করা হইল । বরিশাল আমাদিগের আন্দোলনে তীর্থক্ষেত্র স্বরূপ ও সৰ্ব্বাঞ্জগণ্য হইয়াছে। সুতরাং আমরা বরিশালের লাঞ্ছিত স্বদেশান্থরাগীদিগের নাম করিয়া শেষ করিতে পারি না । যে কয়েকজন মহাপুরুষ কাৰ্য্যক্ষেত্রে আমাদিগের স্মৃতিগোচর হইয়াছিলেন তাহাদিগেরই নাম উল্লিখিত হইল । ঢাকা । ঢাকা, নরসিংদি গ্রামে, দেশহিতৈষী মহাত্মা ললিত বাবুর शरप्ले छूद्देछन भूगलभांन श्रृंउ ध्हे छिटनचब्र विशांडो लदन विकञ्च