লেখন/লেখন ২১-৪২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
(পৃ. ৪ক-৬খ)

ভাসিয়ে দিয়ে মেঘের ভেলা
খেলেন আলো-ছায়ার খেলা,
শিশুর মতো শিশুর সাথে
কাটান হেসে প্রভাত বেলা॥

There smiles the Divine Child
among his playthings of unmeaning clouds
and ephemeral lights and shadows.

মেঘ সে বাষ্পগিরি,
গিরি সে বাষ্পমেঘ,
কালের স্বপ্নে যুগে যুগে ফিরি ফিরি
এ কিসের ভাবাবেগ॥

Clouds are hills in vapour,
hills are clouds in stone,—
a phantasy in time’s dream.

চান ভগবান প্রেম দিয়ে তাঁর
গড়া হবে দেবালয়,
মানুষ আকাশে উঁচু ক’রে তোলে
ইঁট পাথরের জয়॥

While God waits for his temple
to be built of love
men bring stones.

শিখারে কহিল
হাওয়া,
“তোমারে তো চাই
পাওয়া।”
যেমনি জিনিতে চাহিল ছিনিতে
নিবে গেল দাবী-
দাওয়া॥

Wind tries to take flame by storm
only to blow her out.

দুই তীরে তার বিরহ ঘটায়ে
সমুদ্র করে দান
অতল প্রেমের অশ্রুজলের গান॥

The two separated shores mingle their voices
in a song of unfathomed tears.

তারার দীপ জ্বালেন যিনি
গগনতলে
থাকেন চেয়ে ধরার দীপ
কখন্ জ্বলে॥

God among stars waits for man to light
his lamps.



মোর গানে গানে প্রভু, আমি পাই পরশ তোমার,
নির্ঝরধারায় শৈল যেমন পরশে পারাবার॥

I touch God in my song
as the far away hill touches the sea
with its waterfall.

নানা রঙের ফুলের মত ঊষা মিলায় যবে
শুভ্র ফলের মতন সূর্য্য জাগেন সগৌরবে॥

Dawn—the many-coloured flower—fades,
and the sun comes out,
the fruit of the simple white light.

আঁধার সে যেন বিরহিণী বধূ
অঞ্চলে ঢাকা মুখ,
পথিক আলোর ফিরিবার আশে
বসে আছে উৎসুক॥

Darkness is the veiled bride
silently waiting for the errant light
to return to her bosom.

হে আমার ফুল, ভোগী মূর্খের মালে
না হোক্ তোমার গতি,
এই জেনো তব নবীন প্রভাত কালে
আশীষ তোমার প্রতি।

My flower, seek nothing paradise in a fool’s buttonhole.

চলিতে চলিতে খেলার পুতুল খেলার বেগের সাথে
একে একে কত ভেঙে পড়ে যায়, পড়ে থাকে পশ্চাতে॥

Life’s play runs fast,
Life’s playthings fall behind one by one
and are forgotten.

বিলম্বে উঠেছ তুমি কৃষ্ণপক্ষ শশী,
রজনীগন্ধা যে তবু চেয়ে আছে বসি॥

Thou hast risen late, my crescent moon,
but my night bird is still awake to greet you.

আকাশে উঠিল বাতাস তবুও নোঙর রহিল পাঁকে,
অধীর তরণী খুঁজিয়া না পায় কোথায় সে মুখ ঢাকে॥

Breezes come from the sky,
the anchor desperately clutches the mud,
and my boat is beating its breast against the chain.

আকাশের নীল
বনের শ্যামলে চায়।
মাঝখানে তার
হাওয়া করে হায় হায়॥

The blue of the sky longs for the earth’s green.
The wind between them sighs “alas.”

কীটেরে দয়া করিয়ো, ফুল,
সে নহে মধুকর।
প্রেম যে তার বিষম ভুল
করিল জর্জ্জর॥

Flower, have pity for the worm,
it is not a bee,
its love is a blunder and burden.

মাটির প্রদীপ সারাদিবসের অবহেলা লয় মেনে,
রাত্রের শিখার চুম্বন পাবে জেনে॥

The lamp waits through the long day of neglect
for the flame’s kiss in the night.

দিনের রৌদ্রে আবৃত বেদনা বচনহারা,
আঁধারে যে তাহা জ্বলে রজনীর দীপ্ত তারা॥

Day's pain muffled by its own glare
burns among stars in the night.

গানের কাঙাল এ বীণার তার বেসুরে মরিছে কেঁদে।
দাও তার সুর বেঁধে॥

My untuned strings beg for music
in their anguished cry of shame.

নিভৃত প্রাণের নিবিড় ছায়ায় নীরব নীড়ের পরে
কথাহীন ব্যথা একা একা বাস করে॥

In the shady depth of life are the lonely nests
of unutterable pains.

আলো যবে ভালোবেসে মালা দেয় আঁধারের গলে,
সৃষ্টি তারে বলে॥

Light accepts Darkness for his spouse
for the sake of creation.

আলোকের স্মৃতি ছায়া বুকে ক’রে রাখে,
ছবি বলি তাকে॥

The picture — a memory of light
treasured by the shadow.

ফুলে ফুলে যবে ফাগুন আত্মহারা
প্রেম যে তখন মোহন মদের ধারা।
কুসুম-ফোটার দিন হ’লে অবসান
তখন সে প্রেম প্রাণের অন্নপান॥

In the bounteous time of roses
love is wine.
It is food in the famished hour
when the petals are shed.