পাতা:অক্ষয়-সুধা - অক্ষয়কুমার দত্ত.pdf/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

অক্ষয়-সুধা case===১ - ১ ১ ৮৯ ৫৯৭ ৮ ৯ces = ৪ ১ এ প্রিল ২০০৭ বিশেষ বা বস্তুবিশেষের উপর অধিষ্ঠিত নয়, পৃথিবীর স্থলভাগ জলময় সমুদ্রে পরিবেষ্টিত বটে, কিন্তু ক্ষীরসমুদ্র, মুরাসমুদ্র, ইক্ষু-সমুদ্র প্রভৃতি পুরাণোক্ত সপ্তসমুদ্রের অস্তিত্ব-ঘাটত যত উপাখ্যান প্রচলিত আছে, সর্বৈব মিথ্যা; চন্দ্র সজীব পদার্থ নয়, এবং নিজে তেজোময় নয়, উহার উপর স্বর্থ্যের আলোক পতিত হয় বলিয়াতেজোময় বোধ হয়; চন্দ্রমণ্ডলের যে সমস্ত কলঙ্ক দেথিতে পা ওয়া যায়, তাহা হরিণশিশু নয়, অত্যন্ত গভীর গহবর; সেই সকল গহবরে সূর্যের রশ্মি প্রবেশ করিতে পারে না; সূর্য্যমণ্ডল ভূমণ্ডল অপেক্ষা চৌদ্দ লক্ষ গুণ বৃহৎ, রথোপরি স্থাপিত নয়, অশ্ব কর্তৃকও আকৃষ্ট হয় না; সূর্যকে যে প্রতিদিন পৃথিবী প্রদক্ষিণ করিতে দেখা যায়, তাহ৷ বাস্তবিক সূর্যের গতি নয়, পৃথিবী নিয়ত ঘূর্ণিত হইতেছে, এই নিমিত্ত সূর্যের এরূপ গতি প্রতীয়মান হয়; সূর্য পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করে না, পৃথিবী প্রতিঘন্টায় প্রায় ত্রিশ সহস্র ক্রোশ ভ্রমণ করিয়া এক বৎসরে একবার সূর্য্য ‘প্রদক্ষিণ করে,— ইত্যাদি অবধারিত তত্ত্ব-সমুদায় অশিক্ষিত ব্যক্তির হৃদয়ঙ্গম হওয়া অসাধ্য বোধ হয়॥ এই সমস্ত বিষয় অবাস্তবিক উপন্যাস অপেক্ষাও তাহার অসম্ভব বোধ হয়। য৷হার অন্তঃক রণ ঘোরতর অজ্ঞান-তিমিরে এরূপ আচ্ছা রহিয়াছে, জ্ঞানোৎপাণ্ড পরমার্ভূত বিশুদ্ধ সুখসম্ভোগে তাহার অ'ধকার হইবার বিষয় কি? বিশ্বপতির বিশ্বরচনামধ্যে তাহার অচিন্ত্য শক্তি, আশ্চর্য্য কৌশল, অপার মহিমা ও অত্যন্ত করুণার অসংখ্য নিদর্শন দৰ্শন করিয়া, পরমেশ্বরপরায়ণ জ্ঞানবান্ন ব্যক্তির হৃদয়মধ্যে যেরূপ চমৎকার সংবলিত আনন-রসের সঞ্চার হয়, অশিক্ষিত অজ্ঞানাবৃত ব্যক্তির সে রসের স্বাদ-গ্রহে সমর্থ হইবার সম্ভাবনা কি? কিন্তু সুশিক্ষিত সচ্চরিত্র ব্যক্তির প্রশস্ত হৃদয়, পরম পরিশুদ্ধ বিস্তালোক লাভ করিয়া কি অত্যাশ্চর্য্য অনির্বচনীয় শোভায় শোভিত হইয়া থাকে! তাহার অন্তঃকরণ অকারণে সঞ্চিত ও সঙুচিত হইবার নয়; তিনি বিশ্বপতির