পাতা:আত্মচরিত (প্রফুল্লচন্দ্র রায়).djvu/৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সান দেখিয়া যাইব বলিয়া স্থির করিলাম। এই উদ্দেশ্যে একখানি অগ্রগামী ওমনিবাস’ যায়ী গাড়ীতে উঠিলাম। প্যারিস দেখিয়া আমি দক্ষিণ ফ্লাসের ভিতর দিয়া আলপস পবতশ্রেণী পার হইলাম। বহ টানেল, সাক্ষাক্ষেত্র প্রভৃতি আমার চোখে পড়িল। আমাদের গাড়ী দই ঘণ্টার জন্য পিসা সহরে থামিল—আমি সেই অবসরে বিখ্যাত (Leaning Tower) দেখিয়া আসিলাম। ইটালী দেশে রেলওয়ে স্টেশনে পানীয় জল সরবরাহ করা হয় না। কিন্তু প্রচুর সন্তা ও হালকা মদ্য বিরুয়ের ব্যবস্থা আছে। আমাকে তৃষ্ণা নিবারণের জন্য স্টেশনের জলের কলের নিকট প্রায়ই দৌড়াইতে হইত। রোমে গাড়ী থামিলে আমি সহরের রাস্তায় ঘরিয়া ক্যাপিটল প্রভৃতি দেখিলাম। ইটালীবাসীরা সদানন্দ লোক, কথাবার্তা বেশী বলে। ইংরাঞ্জদের মত কপভাষী নয়। ফরাসী ভাষায় আমার সামান্য জ্ঞান লইয়া আমি কোনরপে কথাবাতার কাজ চালাইতে লাগিলাম। আমার সৌভাগ্যক্লমে যাত্রীদের মধ্যে একজন অস্ট্রিয়ান ছিলেন। তিনি ভাল ইংরাজী বলিতে পারিতেন। আমার সঙ্গে তাঁহার বন্ধত্বে হইল। তিনি ট্রিন্টে যাইতেছিলেন। তিনি যখন শুনিলেন যে আমি ব্রিদিসিতে মেল স্টীমার ধারব তখন তিনি টাইম টেবিল দেখিয়া গভীর ভাবে মাথা নাড়িলেন। কহিলেন “আমার আশঙ্কা হয়, আপনি মেল’ ধরিতে পারবেন না, কেন না এই গাড়ী একদিন পরে ব্রিদিসিতে যাইয়া পেছিবে।" তিনি আমার জন্য অস্বসিত বোধ করিতে লাগিলেন এবং একটী স্টেশনে গাড়ী বেশীক্ষণ থামিলে তিনি স্টেশন মাস্টারের সঙ্গে পরামর্শ করিলেন। স্টেশন মাস্টার বলিলেন যে, রেলওয়ে মেলগাড়াঁ শীঘ্রই পে'ছিবে। এবং আমাকে আর কিছ অতিরিক্ত ভাড়া দিয়া তৃতীয় শ্রেণীর টিকেটখানি বদলাইয়া দ্বিতীয় শ্রেণীর একখানি টিকেট লইতে হইবে। এই గా గాణా సౌ ইহার পর আমার পকেটে মাত্র কয়েক শিলিং |