পাতা:আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তর্পন - জলধর সেন.pdf/১৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


98 अiयूकौवनी ७ डि-डod মহাশয় যখন মঞ্চের উপর এলেন তখন সকলেই দণ্ডায়মান হয়ে তঁাকে অভ্যর্থনা করলেন । আমি তাকে চিনতাম না।--তবুও সকলের দেখাদেখি আমিও দাড়িয়ে নমস্কার করলাম। আমার পাশের সেই ভদ্রলোকটিকে জিজ্ঞাসা করে জানতে পারলাম-ইনিই সুপ্ৰসিদ্ধ জয়কৃষ্ণ মুখোপাধ্যায়। মুখোপাধ্যায় মহাশয়ের ক্ষীণ কণ্ঠ হ’তে যে বাণী প্ৰদত্ত হোলো, তার একটি কথা উদ্ধৃত করবার প্রলোভন আমি সংবরণ করতে পারছিনে। অশীতিপর অন্ধ বৃদ্ধ বললেন-It is no wonder that objects such as these should have drawn distinguished gentlemen from all parts of the country when you find a blind old man like myself of 79 years of age bending under the infirmities of age, taking a part in the deliberations. আর একটি যুবক সেদিন সত্যসত্যই আমাকে অভিভূত করে ফেলেছিলেন । একটি প্রস্তাব সমৰ্থন করবার জন্য যখন তিনি মঞ্চের উপর এসে দাড়ালেন তখন সমবেত প্ৰতিনিধি ও দর্শকমণ্ডলী অবাক হয়ে সেই মূর্তির দিকে চেয়ে রইলেন । যুবকের বয়স তখন পচিশ ছাব্বিশ বৎসর। পায়জামা-পরা, গায়ে লম্বা সাদা চাপিকান, একখানি সাদা চাদর গলায় জড়িয়ে তার দুই প্রান্ত বুকের উপর দুইপাশে ঝুলিয়ে দিয়েছেন, মাথায় পাগড়ী, কপালে শ্বেত চন্দনের ফোটা। সত্যসত্যই অপূর্ব-দৰ্শন-ঘূর্তি। তিনি এসে দাড়াতেই আমি পাশের সেই ভদ্রলোকটিকে তঁর পরিচয় জিজ্ঞাসা করলাম,--তিনি বললেন-চিনিনে মশায়, বোধ হয়। পাঞ্জাবী কেউ হবে । তখন আর কাউকে জিজ্ঞাসা করবার অবকাশ পেলাম না। যুবকটি গভীর স্বরে টাউন হলের একপ্রান্ত থেকে অপর প্রাস্ত পৰ্যন্ত প্ৰতিধ্বনিত করে বক্তৃতা আরম্ভ করলেন। আর বক্তার কি উদাত্ত স্বর - এই বৃদ্ধ বয়সেও সে দৃশ্য যখন মনে করি তখন আমি অতুল আনন্দ উপভোগ করি। এই যুবকের নাম অধুনা বিশ্ববিখ্যাত পণ্ডিত মদনমোহন মালিবীয় মহাশয় । তিনি তখন এলাহাবাদ হাইকোর্টের উদীয়মান ব্যবহারাজীবী । কংগ্রেসের কথা এইখানেই শেষ করি। --ভারত উদ্ধার করে যথাকালে ঘরের ছেলে ঘরে ঘিরে এলুম। আবার সেই শিক, সেই দাড়, সেই একঘর। BuL BDOOO DDL DDDDSS SBBB EgBBB DDBDB DDDS ডিসেম্বর মাসের শেষে কংগ্রেস হয়ে গেল। জানুয়ারীর প্রথম ভাগে একদিন বিকেল ৰেলা আমায় একটী প্রিয় ছাত্র আমায় কাছে এসে বললেন