পাতা:আরোগ্য - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/১৮৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বন্ধু এলে খাতির করবে তুমি, আমায় ডাকা কেন ? ঘরে না। এনেই ঘাড়ে দায় চাপানো ভালো নয়। বন্ধু এবার দফা। সারবে, পাচজনকে বলে বেড়াবে। কানু বলে, তেমন বন্ধু নয়। আমি গাড়ী সারাই, ও শালা গাড়ী চালায়। বেলা বলে, এবার আমি পালাই। চাদিক ফস হয়ে গেছে। বলে বুনো হরিণীর মত সত্যই সে পালিয়ে যায় ! কেশব বলে, ধাঁধা লাগছে যে । কানু বলে, পষ্ট জিজ্ঞেস করতে পারলি না ? ছুটে গিয়ে নাগাল ধরে জিজ্ঞাস কর, ধাঁধ মিটিয়ে দেবে। কেশব চাপ চাপ লাল আটালো গমের আট সেকা রুটি দিয়ে গুড়ে দুধের বিশ্ৰী চায়ে ভিজিয়ে ভিজিয়ে খায়, ধীরে ধীরে অনুযোগের সুরে বলে, তুই জানিস না ধাধাটার মানে ? .' কানু বলে, ধাধা কিছু নয়, সিধে ব্যাপার। চণ্ডীতলায় ওর পিসীর বাড়ী, পিসী ওকে বডড ভালবাসে । বাচ্চ বেলায় মারি হয়েছিল অসুখ, পিসী মাই দিয়ে বঁচিয়েছিল। খুলী হলেই পিসীর কাছে যায়, দু’ একদিন থেকে আসে। এবার পিসাের কাছে যাবার নাম করে আমার বাড়ী বেড়িয়ে গেল । ৪। রোজ আসে ? : পাগল নাকি তুই ? ও হ্যািপ্তায় এসে একদিন ছিল, কাল বিকেলে এসে রাতটা থেকে গেল । কঁচের গ্লাসের গরম চায়ে চুমুক দিয়ে কেশব বলে, বাড়ীতে নিশ্চয় জানে ? x b”R