পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/১৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

9y” . আর্য্য-নারী । দুৰ্গে প্রবেশ করিয়াই মুশলমানের প্রতিশ্রুতি ভুলিয়া দুৰ্গবাসী দিগকে হত্যা ও অন্যান্য নানারূপে উৎপীড়ন করিতে লাগিল। লক্ষণ দেখিলেন, মুশলমানের ছলে ভুলিয়া তিনি সর্বনাশ করিয়াছেন। এখন আর উপায় নাই। মুশলমান যে, কুলনারীগণের মর্য্যাদা রক্ষা করিবে, সে আশাও আর নাই। যদি তাহাদিগকে লইয়া কোনও উপায়ে পলায়ন করিতে পারেন, এই মনে করিয়া তিনি দ্রুত অন্তঃপুরে গমন করিলেন । তঁহাকে দেখিবামাত্র ক্রুদ্ধ সিংহিনীর ন্যায় গর্জন করিয়া দুৰ্গাবতী কহিলেন,-“মুর্থ কাপুরুষ ! শত্রুর হাতে দুৰ্গ সঁপিয়া দিয়া এখন অন্তঃপুরে পলাইয়া আসিয়াছ ?” • ভীত-লজ্জিত-লক্ষণ · কহিলেন,-“দেবী, মার্জনা করুন। * ভ্রাতার প্রাণ রক্ষার জন্য, দুৰ্গবাসীদের প্রাণ রক্ষার জন্য, আপনাদের ধর্ম্ম রক্ষার জন্যই দুৰ্গ মুশলমানের হাতে ছাড়িয়া দিয়াছিলাম। তাহারা অঙ্গীকার করিয়াছিল, ভ্রাতাকে মুক্তি দিবে, দুৰ্গবাসীদিগের প্রতি কোন উৎপীড়ন করিবে না।” দুৰ্গাবতী কহিলেন,-“মুর্থ বলিয়াই তুমি শক্রর এই ছলে ভুলিয়াছিলে। কাপুরুষ বলিয়াই সকলেবু প্রাণ রক্ষার আশায় বিনা যুদ্ধে শত্রুর হাতে দুর্গ সঁপিয়া দিয়াছ! তোমার ভ্রাতা। বীর ; পিতৃপুরুষের এই দুর্গের বিনিময়ে, রাজ্যের স্বাধীনতার বিনিময়ে, কখনো তিনি নিজ প্রাণ আকাঙ্ক্ষা করিতেন না ।