পাতা:আর্য্য-নারী দ্বিতীয় ভাগ.djvu/১৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

为8饱 আর্য্য-নারী লুখজী জাধবরাও আমেদনগরের রাজসরকারে কোন বড় রাজকর্ম্মে নিযুক্ত ছিলেন। মালোজি ভোঁসলে নামক একজন ক্ষুদ্র মারাঠা জমিদার ইহার অধীনে কর্ম্ম করিতেন। কথিত আছে, আলাউদ্দিন যখন চিতোর জয় করেন, তখন রাণবংশীয় একজন রাজপুত্র মারাঠাদেশে পলাইয়া আসেন ; মালোজি ইহারই বংশধর । একবার দোলযাত্রা উপলক্ষ্যে পঞ্চম বর্ষীয় বালকপুত্র সাহিজিকে লইয়া মালোজি, লুখজির বাড়ীতে আসেন। বালক সাহজি ও জিজাবাই দু’জনেই বড় সুন্দর। এমন সুন্দর ছেলেটির সঙ্গে এমন সুন্দর মেয়েটির বিবাহ হইলে বেশ মানায়। লুখাজি হাসিয়া জিজাকে কহিলেন,-“কেমন • জিজা, এই ছেলেটিকে বে করবি ?” 蟹 জিজা কহিল,-“হঁ্যা করবো, এই আমার বর।” জিজা তখন তার বরকে লইয়া আবির খেলিতে আরম্ভ করিল। সকলে হাসিয়া বলিল,-“বেশ বেশ! বেশ বর বউ !” ংশে যেমনই হউন, সম্পদে ও পদগৌরবে লুখজি অপেক্ষা মালোজি অনেক ছোট। লুখজির কন্যার সঙ্গে তাঁর পুত্রের বিবাহের আশা ভঁর পক্ষে একরূপ দুরাশার মত। , কিন্তু এই সুযোগ দেখিয়া তিনি সভাস্থ্য সকলকে হাসিয়া কহিলেন“আপনারা সকলে সাক্ষী, জিজ আজ থেকে আমার পুত্রবধু, মুখজি আমার বৈবাহিক।” পরদিন আহারের নিমন্ত্রণ করিলে, মালোজি লুখজিকে