পাতা:ঐতিহাসিক চিত্র (প্রথম বর্ষ) - নিখিলনাথ রায়.pdf/২৪৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জগৎশেঠ । Q R ) দশবর্ষীয়া বালিকার প্রতি ইন্দ্ৰিয়-লালসার সঞ্চার হওয়া কতদূর সম্ভব, তাহা বুলিতে পারি না । যে দেশে বিংশতিবর্ষীয়া রমণীগণও বালিকাপদবাচ্য হইয়া থাকে, সেই দেশের ঐতিহাসিকগণের লেখনী হইতে একটা দশবৰ্ষীয়া বালিকার প্রতি জনৈক প্ৰৌঢ়-সীমাবতী পুরুষের ইন্দ্ৰিয়বিকারের কথাটা কিরূপে নিৰ্গত হয় তাহা আমরা বুঝিয়া উঠিতে পারি না । যদি তাহারা এ দেশের লোকের আচার ব্যবহার দেখিয়া এইরূপ আঁঠুনুমান করিয়া থাকেন, তাহা হঠলে তাহাও সম্পূর্ণ সত্য নহে বলা যাইতে পারে। কারণ, এ দেশেও ঐরূপ ঘটনা সচরাচর উপস্থিত হয় না । নিরপেক্ষ ব্যক্তিগণ র্তাহাদের বর্ণনা হইতে ইহাই বুঝিতে পারিবেন যে, নবাব সরফরাজ খাঁ কেবল কৌতুহলের বশবৰ্ত্তী হঠয়াই সেই বালিকাকে দেখিতে চাহিয়াছিলেন । জগৎশেঠের সহিত নবাব সরফরাজ খ্যার বিবাদ উপস্থিত হওয়ার যে কারণ ইংরাজ ঐতিহাসিকেরা উল্লেখ করিয়া থাকেন, তাহা আনুপুৰ্ব্বিক উল্লিখিত হইল, এবং দেশীয় কোন গ্রন্থে তাহার উল্লেখ না থাকায় তাহার বিশ্বস্ততা সম্বন্ধে যথেষ্ট সন্দেহ আছে, তাহা ও উল্লিখিত হইয়াছে। ইংরাজ ঐতিহাসিকগণের উক্ত কারণে সন্দিহান হওয়ার আর একটী কারণ আছে। শেঠবংশীয়েরা তাহাদিগের উক্ত বৰ্ণনা একেবারেই স্বীকার করেন না । জগৎশেঠবংশের যে প্ৰচলিত বিবরণ আছে, তাহার কোনস্থলে এরূপ ঘটনার চিহ্ন পৰ্য্যন্ত পাওয়া সায় না । যদি এরূপ আপত্তি হয় যে, শেঠবংশীয়েরা আপনাদের বংশের কলঙ্ক গোপন করার জন্য উক্ত বিষয়ের কিছুই স্বীকার করেন না, তাহা হইলে দেশীয় গ্ৰন্থাদিতে উহার কোন উল্লেখ না থাকায় শেঠদিগের প্রচলিত বিবরণ অনেকটা সত্য বলিয়া ধরিয়া লওয়া যাইতে পারে । তাহারা ফতে চাঁদের সহিত সরফরাজের বিবাদ হওয়া অস্বীকার করেন না, কিন্তু তাহার এইরূপ কারণ নির্দেশ করিয়া থাকেন,-নবাব মুর্শিদকুলি খাঁ শেঠদিগের গদীতে টাকা গচ্ছিত রাখিতেন, সরকারী ও বেসরকারী সকল প্রকার অর্থই মহিমাপুরের গদীতে রাখিতে হইত, এ কথা আমরাও পূর্বে উল্লেখ করিয়াছি। নবাব মুর্শিদকুলি খাঁর নিজের সাত কোটি টাকা