পাতা:কবিকঙ্কণ-চণ্ডী (প্রথম ভাগ) - চারুচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/২০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কাৰ্ত্তিকেয়ের জন্ম SSNE সঙ্গতি-অসঙ্গতির প্রশ্ন মনেও আনে না । গ্ৰাম্য শ্রোতাদের কাছে Idealism দেবতাতেও দরকার নাই মানুষেও না। অদ্ভুত অসঙ্গতির ভিতর দিয়া ক্ষণে ক্ষণে পাড়া গেয়ে দৈনিক গৃহযাত্রার যে চিত্রটুকু ফোটে, সকলে তাতেই খুন্সী। কাত্তিক্ষোকার জন্ম ( ৭৯–৮০ পৃষ্ঠা) বৈদিক দেবতাগণেব মধ্যে কুমাব কাৰ্ত্তিকেয়েব নাম নাই । বৈদিক সাহিত্যের মধ্যে শতপথ-ব্ৰাহ্মণে অগ্নির বহুনামের মধ্যে কুমাব নাম পাওয়া যায়। ললিতবিস্তবে দেখা যায়, বুদ্ধদেবের জন্মেব পােব স্মৃতিকাগুহে তাকে স্কন্দ্ৰমূৰ্ত্তি দেখানো হইয়াছিল। খৃষ্টপূৰ্ব্ব ২য় শতাব্দীতে রচিত মহাভাষ্যে দেখা যায়, দেবলের স্কন্দমূৰ্ত্তি গঠন করিয়া বিক্রয় করিত। ইহাব পাবেই মহাভাবতে ও রামায়ণে স্কন্দ-উপাখ্যান লইয়া পুরাণ রচনার সূত্ৰপাত দেখা যায়। মহাভারতের বনপর্বে আছে যে স্বাহা সপ্তর্ষিপত্নীদের মধ্যে এক অরুন্ধতী ছাড়া অপর ছয় জনের রূপ ধরিয়া অগ্নিকে ভজনা করেন ও অগ্নির স্কন্ন বা স্বলিত তেজ হইতে স্কন্দ উৎপন্ন হন। অগ্নির এক নাম কন্দ্র ছিল বলিয়া, এবং অঙ্গিরা ঋষির পত্নীব নাম শিবা ছিল বলিয়া, পরে সহজেই স্কন্দ রুদ্রপুত্র ও শিবা-পুত্র নামে পরিচিত হন। লোহিত্য-সাগরের কন্যা (গ্ৰীক পুরাণে এর নাম এঃবা ) কুমারকে ইন্দ্রপ্রেরিত জাতিহাবিণী মহেশ্বরী প্ৰভৃতি মাতৃকাদের আক্রমণ হইতে রক্ষা করেন। ইন্দ্ৰ কুমাবকে বীজ প্ৰহার কবিলে কুমাবের দেহ হইতে অপস্মার পূতনা প্রভৃতি মাতৃকাদেব উৎপত্তি হয় (মহাভাবিত বনপৰ্ব্ব ; স্কন্দপুরাণ) । কুমাবেবি ছয় মস্তক, তাব একটি ছাগমুণ্ড । কুমারেব বাহন তাম্রচুড় কুকুট-ময়ূর নহে । এই “কুকুটশচাগ্নিনাদত্তস্তম্ভ কেতুব অলঙ্কতঃ” ( মহাভারত, বনপৰ্ব্ব, ২২৮ অধ্যায় ) । মৎস্যপুরাণে এই কুকুট কুমারকে দেন বিশ্বকৰ্ম্ম-দদৌ ক্ৰীড়নকাং ত্বষ্ট কুকুটং কামরূপিণম।—মৎস্তপুরাণ, ১৫৯ অধ্যায়। এই পুরাণেই আবার স্কন্দকে ময়ূরবাহনও বলা হইয়াছে। স্কন্দপুরাণেও তঁাহাব এক নাম কুকুটী ( মাহেশ্বর কুমারিকা ২৯ )। কুমার স্কন্দ লক্ষ্মী ও দেবসেন ষষ্ঠীকে বিবাহ করেন। মাঘ মাসের শুক্লাপঞ্চমীতে স্কন্দ ও লক্ষ্মীর পরিণয় হয় বলিয়া ঐ তিথি আজ পৰ্য্যন্ত শ্ৰীপঞ্চমী নামে প্ৰসিদ্ধ আছে এবং ষষ্ঠী। তিথিতে স্কন্দ তারক বিজয় করেন । কুমারজন্মের সঙ্গে সপ্তর্ষির সম্পর্ক আগেই দেখিয়াছি। সপ্তর্ষি নক্ষত্ৰকে কৃত্তিকা বলিত ; কৃত্তিকা সম্পর্কে কুমারের নাম হয় কাৰ্ত্তিকেয়। 지