পাতা:কবিতা - কেশবচন্দ্র কুণ্ডু.pdf/৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৪১
কবিতা।



আমার মতন পাখী!   তোর কি পুড়েছে আঁখি,
হেলায় হারালি কবে বল বল বল!—
জগতে সৌন্দৰ্য্য সুখ,   শান্তি-পূর্ণ ভরা বুক;
জানিলি জগৎ কবে দগ্ধ মরুস্থল?

সুখের শৈশব বেলা   ভেঙ্গে গেলে ছেলেখেলা
একলা বসিয়া অই বৃদ্ধ তরুতল,
উদাস পরাণে থাকি   এমনি শুনেছি পাখী!
তোর অই স্বর পাখী, পরাণ পাগল!

কত দিন চলে গেছে,   এখন তেমনি আছে,
তেমনি সে কাতরতা করুণ উচ্ছ্বাস,
ভাল পাখী! শিখেছিলি,   পরাণ উছলি তুলি
বিষাদসঙ্গীত গীতে কাতর উল্লাস!

ঘুমে বায়ু অচঞ্চল,   নড়ে না পল্লবদল,
ঘুমায় সকল পাখী, ঘুমায় সকল;
তরঙ্গে না ভাঙ্গি হৃদি,   নিথরে ঘুমায় নদী,
শ্বাসে যেন রাখি প্রাণ স্রোতমুখী জল।