পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ఫిషి কলিকাতা সেকালের ও একালের । সোণামণিকে চন্দ্রদ্বীপে পাঠানই উচিত। শ্ৰীমন্ত, রাণীর অনুরোধে—সোণাকে চন্দ্রদ্বীপে পৌছাইয়া দিবার ভারগ্রহণ করিল। রাজকন্যা সোণামণি শ্ৰীমন্তের রক্ষাধীনে, চন্দ্রদ্বীপ যাইবার জন্য নৌকায় উঠিলেন। পাপিষ্ঠ শ্ৰীমন্ব, ইতিপূর্বেই প্রচুর অর্থদানে, মাঝিদের সহিত সমস্ত বন্দোবস্ত স্থির করিয়া রাপিয়াছিল। মাঝিরা সেই উপদেশ অনুসারে এবং প্রচুর অর্থের প্রলোভনে, নৌকাখানি চন্দ্রদ্বীপের দিকে না চালাইয়া, সুবর্ণগ্রামের দিকে চালাইল । শ্ৰীমন্তের পরামর্শ-ক্রমে, সেই সময়ে এই সুবর্ণ গ্রামেই, ঈশাখা মসনদ অবস্থান করিতেছিলেন । শ্ৰীমন্ত-বিনা প্রতিযোগিতায়. বিনা সন্দেহে, সুবর্ণগ্রামে নবাব ইশখার নিকট-সোণামণিকে পৌছাইয়া দিল। এ ব্যাপার এত গুপ্তভাবে ও কৌশলের সহিত সমাধা হুইল —যে চাদরায় ও কেদাররায়, ইহার বিন্দু-বিসর্গ জানিতে পারিলেন না । যথাসময়ে--- এই ঘটনা, সর্বপ্রথমে চাদরায়ের কর্ণগোচর হইল । তিনি দারুণ মৰ্ম্ম-স্বাতনায় ও ঘৃণায়, যুদ্ধভার কেদাররায়ের উপর সমপণ করিয়া, রাজধানীতে প্রত্যাগমন করিয়া কস্তা-শোকে আহার-নিদ্র ত্যাগ করিলেন । চাদরায় রাজধানীতে পৌছিয়া, অমাত্য বন্ধু-বান্ধব কাহারও সহিত ব্যাকালাপ করিলেন না । কেবল মাত্র অনশন-ব্রতাবলম্বন পূৰ্ব্বক, কোটীশ্বরের মন্দিরে শয়ন করিয়া রছিলেন । প্রবাদ আছে – এই অবস্থায় দুই দিবস অতীত হইবার পর, তাহার ইষ্টদেবী তাহাকে স্বপ্নে দর্শন দিয়া বলিলেন--”বৎস ! যাহা হইবার তাহা হইয়াছে। এখন এই লোক-ক্ষয় কর যুদ্ধ হইতে, তোমাদের বিরত থাকাই শ্ৰেয়ঃ। ভবিষ্যৎ বিপদ—এতদপেক্ষ আরও বেশী। তাহা হইতে মুক্ত হইবার জন্য বদ্ধ পরিকর ও ” দেবীর এই প্রত্যাদেশ পাইয়া, চাদরায় মনে মনে ভাবিলেন—“সোণামণিকে পুনঃপ্রাপ্ত হইলেও, তিনি তাহাকে গৃহে স্থান দিতে পরিবেন না। সমাজে-সোণার কোন স্থানই নাই। বিশেষতঃ মোগল-বাদসাহের সহিত যেরূপ বিবাদের মুত্রপাত হইতেছে, তাহাতে কখন-কি হয় বলা যায় না। অতএব, এই যুদ্ধ হইতে এখন বিরত থাকাই শ্ৰেয়ঃ। এই উদেহু চালিত হংসী তিনি রাজা কেদাররায়কে এই লোকক্ষয়কর যুদ্ধে ক্ষান্ত দিয়া রাজধানীতে প্রত্যাবৰ্ত্তন করিতে অনুমতি প্রদান করেন । - কেদাররাম, এদিকে ধার বক্রমে ইশাসরি ত্ৰিবেণীর্ণ পৰ্য্যন্ত অবরোধ করি। ইহাকে সম্পূ{\পে বিধ্বস্তু করিবার চেষ্টা করিতেছিলেন। কিন্তু