পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৩৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৩২২ কলিকাতা সেকালের ও একালের । চৌরঙ্গী ও র্তাহার শিষ্যগণ ঘোর শাক্ত ছিলেন। আগমবাগীশেরদম সমগ্র বঙ্গে শিব ও শক্তি পূজার এবং তন্ত্রাগরাহুমোদিত ক্রিয়ারি ৯ প্ৰাদূৰ্ভাব হয়। আমরা একজন অশীতিপর বুদ্ধের মুখে শুনিয়াছি-য়ে দেই । সময়ে চৌরঙ্গীর জঙ্গল * ও তাহার পার্শ্ববর্তী সীমার মধ্যে, চারিট শিম, , প্রতিষ্ঠিত হইয়াছিল। সন্ন্যাসীরাই ইহার পূজা করিতেন । এই ক্যn ' শিবলিঙ্গের মধ্যে দুইটর অস্তিত্ব এখনও আছে। (১) নকুলেশ্বর-স্থিনি এখন সৰ্ব্বজন প্রসিদ্ধ হইয়া কালীঘাটে বিরাজ করিতেছেন। আগে ইন পর্ণকুটীরের মধ্যে রক্ষিত ছিলেন—তৎপরে তারাচীদ শিখ, ইহঁর বর্তমান মন্দির করিয়া দেন। (২) জঙ্গলেশ্বর মহাদেব-চরিণবাড়ীর নিকটস্থ জঙ্গলে এই শিব ছিলেন। আমরা শুনিয়াছি—এই জঙ্গলেশ্বর, ভবানীপুর কাশারী পাডার কোন স্থানে আছেন। সম্ভবতঃ এই লিঙ্গমূর্তি চৌরঙ্গী গিরির শিনা জঙ্গলগিরির প্রতিষ্ঠিত । (৩) “চৌরঙ্গীশ্বর" মহাদেব । একটা চলিত প্রবাদ এই, বৰ্ত্তমান এসিয়াটিক সোসাইট-গৃহ যে স্থানে নিৰ্ম্মিত হইয়ছিল, সেই স্থানেই “চৌরঙ্গীশ্বর” শিবলিঙ্গ বর্তমান ছিলেন। সোসাইটর বাট নিৰ্ম্মাণের পর, দরোয়ণনেরা একটী ক্ষুদ্র মণ্ডপ, নিৰ্ম্মাণ করিয়া, তন্মধ্যে র্তাহাকে প্রতিষ্ঠা করিয়াছিল। পরে উক্ত সোসাইটীর একজন সভাপতির আদেশে তাড় স্থানান্তরিত হয় । (৪) নঙ্গরেশ্বর—ইহার অপভ্রংশ নাম “লাঙ্গলেশ্বর”। এই নঙ্গরেশ্বর মহাদেব এখনও বর্তমান । বড়বাজার লোহাপটীর নিকট বাসনপটার মোড়ে, পান-পোস্তার কাছে ইহার মন্দির এখনও রহিয়াছে। কয়েকজন উড়িয়া-পাণ্ড এখন ইহঁর পূজক। প্রত্যহ সন্ধ্যার সময় শঙ্খ ঘণ্টা নাদে এখনও ইষ্ঠার আরতি হয় । তথনকার কালের ভাগিরথী, বর্তমান স্থাও রোড পর্য্যন্ত প্রসারিত ছিলেন । নদীর ধারেই নঙ্গরেশ্বরের মন্দির। অবশ্য 靴

  • কলিকাতার বর্তমান লালদিঘীর দক্ষিণ হষ্টতে সুদূরে দক্ষিণপ্রান্তব্যাপী এক জঙ্গল DDDBB BBB BBBB BBS BDB DBB BBB BBBB BBBB BBB BBBB প্রভৃতি শিবপ্রতিষ্ঠার পরই ইহা “চৌরঙ্গী-জঙ্গল” আখ্যা প্রাপ্ত হয়। হলওয়েলের সময়ে চৌরঙ্গী-জঙ্গল,মধ্যে একটি রাস্তার অস্তিত্ব পাওয়া যায়। পলাশীদ্ধের পাঁচ বৎসর আগে লিপিস্ত Ses Fz. Foto: Fotos ersf-–“The road leading to Colygot ( Kalgha) and [}ce (Talcutta” éž FBrzs পরিষ্কত झझे एक फ्रैंौरी अभन्न ठाiग्लिश क्लिल । »१dv श्रृं : *** মীরজাফরের পুত্র মীরণ, কোম্পানীকে যে কলিকাতার নূতন সনন্দ দেন, তাহাতে গোষ্ঠী জঙ্গল কতকাংশ, কলিকাতার মধ্যে, আর কতকাংশ পাইকান পরগণার মধ্যে কি উল্লিগি ঙ্গ ছিল । এষ্ট চৌরঙ্গাঙ্গলে বড় ডাকাতের ভয় ছিল—পালকীওয়ালার রাজ এ জঙ্গল পথের মধা দিয়া সওয়ার লষ্টত না—ব সওয়ার লইলে ডবল ভাড়া চতি রাত্রিকালে দলবদ্ধ না হইয় কেহই এ পথে আসিত না ।