পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৪৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পঞ্চদশ অধ্যায় , সাহায্য প্রার্থনা করেন। কিন্তু সে সাহায্য আসিয়া পৌছিবার পূৰ্ব্বে, জাবু তোরাপ পীর খা নামক একজন জমাদারকে জুইশত অশ্বারোহীর সহিত সীতারামের বিরুদ্ধে প্রেরণ করিলেন । আবুতোরাপ, পার থাকে সীতারামের বিরুদ্ধে প্রেরণ করিয়া নিজে শিকারে গমন করেন। সীতারাম, লুক্কায়িতভাবে পীর খণকে আক্রমণ করিবার জন্য যেস্থানে অপেক্ষা করিতেছিলেন, আবুতোরাপ জঙ্গলের মধ্যে ঘুরিতে ঘুরিতে, সহসা সেইস্থানে উপস্থিত হন। সীতারামের সেনাগণ পীর খ। বোধে, আবুতোরাপকে হত্যা করে। ফৌজদারকে হত্যা করিবার ইচ্ছ। সীতারামের ছিল না, এজন্য তিনি দুঃখিত চিত্তে, ফৌজদারের মৃতদেহ ड्रशभांग्र णशेब्र शिब সমাধিস্থ করেন। এইবার তিনি বুঝিলেন, নবাবের সহিত র্তাহার প্রকাশ্য শকত আরম্ভ হইবে। আবুতোরাপ বাদসাহের অতি নিকট সম্পৰ্কীয় ব্যক্তি। মুরশীদকুলি ধী নিশ্চয়ই এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ না লইয়। ছাড়িবেন না । নবাব মুরশীদকুলী খা, এই সংবাদে বিচলিত হইয়া, সীতারামের দমনের গুহু উপহার নিকট আত্মীয় বক্স অলি থাকে, ভূষণার ফৌজদার রূপে প্রেরণ করেন। তাহাকে পরামর্শ দিবার জন্ত, দীঘাপতিয়া রাজবংশের আদিপুরুষ দয়ারমও সঙ্গে আসিয়াছিলেন। সংগ্রাম সিংহ নামক অার একজন সেনাপতি বক্স অলিীর অধীনে, স্ববেদারী-সেনার পরিচালক রূপুে ভূষণায় আসেন। বক্স আলি, সংগ্রাম সিংহ নামক এক সেনাপতিকে সীতারামের বিরুদ্ধে প্রেরণ করিলেন । সংগ্রাম সিংহের সহিত, দয়ারাম রায়ও ছিলেন। এই দয়ারামের পরামর্শেই সংগ্রাম সিংহ, সীতারামকে জখম করিতে পারিয়াছিলেন । সীতারামের প্রধান সেনাপতি মেনাহাতী, প্রতিদিন প্রাতঃকালে প্রচ্ছন্নভাবে নগর প্রদক্ষিণ করিয়া, বিপক্ষপক্ষের সংবাদ লইত। মহম্মদপুরে একদিন ভয়ানক কোয়াশা হয় । মেনfহাতী পুৰ্ব্ব প্রথামত যেমন নগর-প্রদক্ষিণ করিতে বাহির হইয়াছে—অমনি দয়ারামের পরামর্শে, সুবাদারী ফৌজ তাহাকে আক্রমণ করিয়া শূলবিদ্ধ করে, মেনহোতীর ছিন্ন-মুণ্ড, নবাব মুরশদকুলীর নিকট প্রেরিত হয়। নবাব এই বীর-প্রবরের ছিন্ন-মুও দেখিয়ী না কি আক্ষেপ করিয়া বুবিয়াছিলেন, “তোমার স্তায় বীরকে আমি জীবিতবস্থায় দেখিতে পাইলে বড়ই মুখী হইতাম।” 曙 মেনাছাতীর নিপন সংবাদে, সীতারাম অতিশয় ভগ্নহৃদয় হইয়।