পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৪৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


@S慧 কলিকাতা সেকালের ও একালের । (৩) দারোগা সায়ের (শুষ্ক-বিভাগের অধ্যক্ষ )। “ সম্রাটের হইয়া প্রদেশ শাসন করিতেন—মুবাদার ও দেওয়ান । স্ববাদার প্রায় রাজবংশীয়গণই হইতেন । দেওয়ান, রাজস্ব-বিভাগের সর্বময় কৰ্ত্ত । স্বৰাদারকে কিন্তু দেওয়ানের নিকট হইতেই বেতন গ্রহণ করিতে হইত। দেওয়ানী বিভাগের কৰ্ম্মচারীবর্গ, সম্পূর্ণরূপে এই বাদসাই-দেওয়ানের অধীন ছিলেন। মুরশীদকুলী খণর আমলে, দেওয়ান ও সুবেদার-পদের সমীকরণ হয় । মুরশীদকুলী খাঁ সুরেদার হওয়ায়, দেওয়ানের পদ লোপ পায়, কিন্তু মুরশীদকুলী “খালসা-দেওয়ান” বা রাজস্ব-সচিব বলিয়া একটি সূতন পদ স্বষ্টি করেন। খালসা দেওয়ান, সমগ্র রাজ্যের আয়বায় নিৰ্ব্বাহ v৪ রাজস্ব-বন্দোবস্ত করিতেন। এতদ্ভিন্ন দেওয়ানী আদালতের প্রধান বিচারকের কার্য্যও তাঁহাকে করিতে হইত। জমিদার ও প্রজার মধ্যে বিবাদ উপস্থিত হইলে, তিনি স্বয়ং বা তাহার প্রতিনিধি তাহার বিচার করিতেন । রাজকীয় গুরুতর কার্য্য ব্যতীত, নায়েব-নাজিম অন্যান্ত কাৰ্য্য স্বাধীন ভাবেই করিতেন। উড়িষ্যা, ঢাকা ও পাটনা এই তিন স্থানেই নায়েবনাজিম নিযুক্ত হইত। ঢাকার নায়েব-নাজিমের ততটা প্রয়োজন ছিল না। যিনি তাহার সহকারীরূপে ঢাকায় থাকিতেন, তিনিই সরকারে রাজস্ব পাঠাইয়া দিতেন। নায়েব নাজিমগণ জায়গীয় পাইতেন। মুরশীদকুলী খাঁ, এই নায়েব-নাজিমের অধীনেই ফৌজদারী-বিভাগ স্থাপিত করিয়া দেন । ফৌজদারগণ দেশের ম্যাজিষ্টেট । নবাবী আমলে সমগ্র বঙ্গদেশ দশটা ফৌজদারীতে বিভক্ত ছিল। (১) চট্টগ্রাম (ইসলামাবাদ) (২) শ্রীহট্ট (৩) রজপুর (৪) রাদামাটা ( e ) পূর্ণিয়া (জেলালগড়) (৬) রাজমহল (আকবর নগর ) (৭ ) রাজসাহী (৮) বৰ্দ্ধমান (৯) মেদিনীপুর (১- ) হগলী (বক্স বন্দর) এই সকল ফৌজদারীতে একজন করিয়া কোঁজস্বার নিযুক্ত হইতেন। খাস মুরশীদাবাদ সহরে, একজন অতিরিক্ত ফৌজদার নিযুক্ত ছিলেন। এই ভাৰে বিহার-প্রদেশেও আটটা ফৌজদারী ছিল। ফৌজদারেরা তাহাজের অধীনস্থ প্রদেশসমূহের শান্তিরক্ষা করিতেন। বিদ্রোহী-জমিদার বা প্রজাশাসন, বিভাগের সীমানা-রক্ষণ ও আভ্যন্তরিণ শাসন-শৃঙ্খলার তার ইহাদের উপর গুস্ত ছিল। এই সমস্ত বিভাগীয় ফৌজদারগণ, মোগল-রাজত্বের উজ্জল দিনে বাদলাছ সরকার হইতেই