পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৬৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


やうのやり কলিকাতা সেকালের ও একালের । কলিকাতার অস্বাস্থ্যকর অবস্থা সম্বন্ধে, ক্লাইভের অভিমত । “বাজে খরচ কমাইবার উদ্দেশ্যে—আমি সেনাদের জন্য “ভাতা” ও অন্যান্ত উপরি বাব বন্ধ করিয়া দিবার আদেশ প্রদান করিয়াছি। তাহারা কলিকাতা দুর্গে প্রত্যাবৰ্ত্তন করিয়া তথায় বাস করিবে, ইহাই আমার সঙ্কল্প। কিন্তু বৰ্ত্তমানে কলিকাতার অবস্থা অতি অস্বাস্থ্যকর। এই সঙ্কট সময়ে সেনাগণকে কলিকাতায় রাখিলে তাহদের অনেকেই “পাক্কাজরে” মৃত্যুমুখে পতিত হইবে। সেনাগণের স্বাস্থ্যরক্ষার দিকে দৃষ্টিপাত করিয়া আমি আপাততঃ তাহাদের কলিকতা-বাস রহিত করিলাম। আমি আশা করি, আমার এই ব্যবস্থায় কোম্পানীর সেনাগণের যথেষ্ট উপকার সাধিত হইবে।” * চৌরঙ্গীর জঙ্গল, ভাগীরথীর জঙ্গলময় আর্দ্র সৈকতভূমি, কলিকাতাকে সেপ্টেম্বর মাসে মৃত্যুর লীলাক্ষেত্র করিয়া তুলিত। এই সময়ে এক রূপ জর দেখা দিত, ইংরাজেরা তাহাকে “পাক্কাফিভার’ বলিতেন । ইহা ম্যালেরিয়ার রূপান্তর । একবার যাহাকে ধরিত, সহজে তাহাকে ছাড়িতে চাহিত না । তখন কলিকাতার স্বাস্থ্যরক্ষার সম্বন্ধে কোন বন্দোবস্তই ছিল না। অনেক স্থান ঝোপ-জঙ্গলে পূর্ণ ছিল। এই জঙ্গলগুলি কাটাইবার জন্ত, মধ্যে মধ্যে সরকারী আদেশ প্রচারিত হইত। কিন্তু সমস্ত গাছপালা ও জঙ্গল একেবারে পরিষ্কার করা, অতি ব্যয়সাধ্য ও দুরূহ ব্যাপার। এইজন্য কোম্পানী-বাহাদুর, অধিবাসীদের সহায়তায় কলিকাতাকে জঙ্গলবিমুক্ত করিবার চেষ্টা করেন । এই সময়ে এ সম্বন্ধে যে আদেশ প্রচারিত হয় তাহা এই—“সহরের মধ্যে ও আশে পাশে বড় বড় গাছগুলি কাটাইয়া, কলিকাতাকে রৌদ্র ও বায়ুপূর্ণ করা বিশেষ প্রয়োজন হইয়া পড়িয়াছে। এজন্য আদেশ করা যাইতেছে, আমাদের অধিকারের মধ্যে যাহারা বসবাস করিতেছে, তাহারা নিজব্যয়ে স্ব স্ব দখলী জমীর, বাগানের ও পতিত-ভূমির জঙ্গল কাটাইয়া লইবে । কমলা লেবু ও অন্যান্য ফলের গাছগুলি কেবল তাহারা কাটিতে পরিবে না। যাহার নিজ ব্যয়ে জঙ্গল কাটাইবে, তাহার কষ্ঠিত বৃক্ষাদির স্বত্বাধিকারী হইবে। কোম্পানী এসব বৃক্ষ সম্বন্ধে কোনরূপ দাবীদাওয়া করিবেন না। “পাঠক মনে রাথিবেন—পলাশী যুদ্ধের পরও কলিকাতার বন জঙ্গল এই অবস্থায় ছিল। কলিকাতার অনেক বাগানে ও জঙ্গলে তখন কমললেবুর গাছ জন্মিত

  • Lord Clive's Letter to the Court—Para 11. Dated 22 August 1757.