পাতা:কলিকাতা সেকালের ও একালের.djvu/৮৩৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


tro o কলিকাতা সেকালের ও একালের । গাছটা ছিল। এই বৈঠকখানাতেই “ব্রেড-এও-চিজ” বাঙ্গালো বলির সেকালের ইংরাজদের স্বপ্রসিদ্ধ আড্ডা-গৃহটা বৰ্ত্তমান ছিল। ৯ বাঙ্গালোটা, কলিকাতার একটা বিখ্যাত ট্যাভারন—বা সেকালের সাহেবদের জমায়তের আড্ডা। ১৭৮৪ খ্ৰীঃ অঙ্গে হিকিজ গেজেটে, এই বাঙ্গল বিক্রয় সম্বন্ধে এক বিজ্ঞাপন দেখিতে পাওয়া যায়। এই বৈঠকখান অঞ্চলে, অনেক বাঙ্গালী বাস করিতেন। তবে বাঙ্গালী অপেক্ষ মুসলমানের সংখ্যা এ অঞ্চলে যেন কিছু বেশী ছিল। পূৰ্ব্বে আমরা, মহরমের ও দুর্গাপূজার সময়, হিন্দু-মুসলমানের মধ্যে যে দাঙ্গার কথা বলিয়াছি— তাহা হইতেই প্রমাণ হয়—এ অঞ্চলে পলাশী-আমলের ৩০ বৎসর পরে অনেক লোকের বসবাস হয়। গবর্ণর হেষ্টিংস সাহেব ১৭৮২ খ্ৰী: অবো “মাদ্রাসা বা পাশিয়ান-কলেজ” স্থাপন করেন । এই মাদ্রাস সৰ্ব্বপ্রথমে এই বৈঠকখানাতেই স্থাপিত হইয়াছিল। বর্তমানকালে, এই বহুবাজার অঞ্চলে, অনেক সন্ত্রান্ত ও ভদ্র বাঙ্গালী বসবাস করেন। চিৎপুর রোডের ন্যায় বৌবাজার-টিও সৰ্ব্বদা জনপূর্ণ। ইহার দুইধারে, অলিগলিতে, নানাস্থানে প্রাসাদ-তুল্য অট্টালিকা সমূহ-নিৰ্ম্মিত হওয়ায় ইহ যথেষ্ট জনপূর্ণ হইয়া পড়িয়াছে। বড়বাজারের মত, অনেক দোকান-পাট এখন এই পথের দুই পাশ্বে বর্তমান । বহুবাজার এখন কলিকাতার একটী বিশিষ্ট সম্রাস্ত-পল্লী। শোভাবাজার রাজা নবকৃষ্ণের স্ট্রীট । মহারাজ নবকৃষ্ণ ঐতিহাসিক ব্যক্তি। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয়, বড় বড় ইংরাজ ঐতিহাসিক অর্থাৎ অৰ্ম্মি, মিল প্রভৃতি ঐতিহাসিকগণ, এই বাঙ্গালীশ্ৰেষ্ঠের নামোল্লেখ পৰ্য্যন্ত করেন নাই। নবকৃষ্ণের দোষগুণ অনেক ছিল। কিন্তু তিনি যে সেকালের একজন প্রতিভাবান ও ক্ষমতাশালী লোক ছিলেন, সে বিষয়ে কোন সন্দেহই নাই। সত্য - বটে, তিনি নন্দকুমারের ঘোর শত্রু ছিলেন—সত্য বটে, জীবনের অনেক কাজে তিনি ভ্ৰম করিয়াছিলেন, কিন্তু তাহা সত্বেও তিনি যে একজন সৰ্ব্বজন মান্ত লোক ছিলেন, তাহার আর কোন সন্দেহই নাই। সেকালের বাঙ্গালী, ইংরাজী জানিতেন মা—নবকৃষ্ণ চেষ্টা করিয়া ইংরাজী ভাষায় দখল লাভ করেন। পারসী ও উর্দুতে তিনি বিশেষ দক্ষ ছিলেন। ওয়ারেণ হেষ্টিংসকে তিনি পারসী পড়াইতেন। পলাশী-সমরের সময়